প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] আওয়ামী লীগকে আগামী নির্বাচনের জন্য প্রস্তুত করতে হবে: ওবায়দুল কাদের

সমীরণ রায়: [২] জিয়াউর রহামানকে আওয়ামী লীগ নয়, তাঁর কর্মেই ইতিহাসের খলনায়ক। [৩] আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আরও বলেন, দলের মধ্যে অভ্যন্তরীণ দ্বন্দ্ব ও কোন্দল মুক্ত করে শক্তিশালী করতে হবে। নির্বাচনের আর বেশি দেরি নেই, দুই বছর আছে। দলকে দ্বন্দ্ব-কোন্দল মুক্ত করে সামনের নির্বাচনে শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে হবে। দলের মধ্যে দৃঢ়তা ও ঐক্য ফিরিয়ে আনতে হবে। দলের শৃঙ্খলার ব্যাপারে শেখ হাসিনা কঠোর অবস্থানে রয়েছেন।

[৪] তিনি বলেন, ওয়ার্ড, ইউনিয়ন, উপজেলা থেকে সম্মেলন করে নতুন কমিটি দিতে হবে। এর পর জেলা সম্মেলন করতে হবে। পকেট কমিটি করা যাবে না। প্রয়োজনে ঘরোয়াভাবে সম্মলন করে কমিটি দিতে হবে। নিজের অবস্থান শক্ত করার জন্য পকেট কমিটি করা যাবে না। কর্মীরা কোণঠাসা হয়ে গেলে আওয়ামী লীগ কোণঠাসা হয়ে যাবে।

[৫] সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী বলেন, চিহ্নিত সন্ত্রাসী, দুর্নীতিবাজ, সাম্প্রদায়িক, মাদক ব্যবসায়ীদের দলে ও কমিটিতে নেওয়া যাবে না। দলের মধ্যে বিশৃঙ্খলা করা যাবে না। এ দেশে লুটপাট তন্ত্র চালু করেছিল বিএনপি। হাওয়া ভবনের নামে খাওয়া ভবন চালু করেছিলো। কোনো দুর্নীতির বিচার হতো না। কোনো নেতাকর্মীকে শাস্তির আওতায় আনা হতো না। এ ব্যাপারে বঙ্গবন্ধুকন্যা জিরো টলারেন্স নিয়ে চলছেন।

[৬] তিনি বলেন, ‘বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলগীর বলেছেন “জিয়াউর রহমানকে খলনায়ক বানানোর চেষ্ট হচ্ছে।” বস্তুতপক্ষে আওয়ামী লীগ না, তার কর্মেই খলনায়ক হয়েছেন। ষড়যন্ত্রেও মাধ্যমে বঙ্গবন্ধুকে হত্যার বেনিফিসিয়ারি জিয়াউর রহমান।

[৭] রোববার ২৩ বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

সর্বাধিক পঠিত