প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] য‌শো‌রে ক‌রোনায় আক্রান্ত ১৯৪ ও মৃ‌তের সংখ্যা ছাড়ালো ১০০

র‌হিদুল খান: [২] যশোরে করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা একশ’ হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছে ১’শ ৯৪ জন। মৃত্যু হয়েছে তিনজনের। যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের রেড ও ইয়োলোজোনে প্রতিদিন বাড়ছে ভর্তি রোগীর সংখ্যা। এমন পরিস্থিতে স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে পূর্বপ্রস্তুতি হিসেবে ৫০ শয্যার আরও একটি করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতাল প্রস্তুত করার উদ্যোগ নিয়েছে প্রশাসন।

[৩] এ কাজে সহযোগিতা করছে ঢাকার কেরাণীগঞ্জের সাজেদা ফাউন্ডেশন। সংস্থাটি যশোরে সরকারি ব্যবস্থাপনায় পরিচালিত হাসপাতালের করোনা ইউনিট পরিচালনায় সহায়তা করবে।

[৪] নতুন করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতাল হিসেবে জেলা প্রশাসন ও স্বাস্থ্যবিভাগ শহরের জনতা হাসপাতালকে বেছে নিয়েছে। এ বিষয়ে জনতা হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সাথে বৃহস্পতিবার বেলা ১২টার দিকে আনুষ্ঠানিক আলোচনা করেন জেলা প্রশাসক তমিজুল ইসলাম খান যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক আক্তারুজ্জামান ও সিভিল সার্জন শেখ আবু শাহীন।

[৫] জেলা প্রশাসক তমিজুল ইসলাম খান বলেন, সীমান্তবর্তী জেলা হিসেবে যশোরে করোনা সংক্রমণ বাড়তির দিকে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে জেলায় বিশেষ বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে। জনতা হাসপাতালটি পূর্ব প্রস্তুতির অংশ হিসেবে প্রস্তুত করা হচ্ছে। করোনা রোগীর সংখ্যা ও চাপ আরও বাড়লে প্রয়োজনে এ হাসপাতালটি ব্যবহার করা হবে। তিনি আরও বলেন, যশোরে করোনা চিকিৎসায় প্রয়োজনীয় জনবল, ওষুধ ও যন্ত্রপাতি দিয়ে সহযোগিতা করছে সাজেদা ফাউন্ডেশন।

[৬] সিভিল সার্জন শেখ আবু শাহীন জানান, এখনো পর্যন্ত করোনা আক্রান্ত রোগীদের যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেখে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। যদি কিছু রোগীকে বাইরে রাখার মতো পরিস্থিতি সৃষ্টি হয় সে কারণে একটি বেসরকারি হাসপাতাল নির্বাচন করা হয়েছে। যে কার্যক্রমের অংশ হিসেবে জনতা হাসপাতাল পরিদর্শন করে প্রাথমিক আলোচনায় উপযুক্ত হিসেবে মনে করা হচ্ছে। প্রয়োজনে এ হাসপাতাল ব্যবহার করা হবে।

[৭] যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের তত্ত্ববধায়ক আক্তারুজ্জামান বলেন, হাসপাতালের করোনা রোগী নিয়ে কিছুটা হলেও চাপের মধ্যে আছেন তারা। ভারতফেরত করোনা পজিটিভ রোগীদের এ হাসপাতালে স্থানান্তর করতে পারলে যমেকের রেডজোনে যে চাপ আছে তা কাটিয়ে ওঠা যাবে। পাশাপাশি হাসপাতালে অধিক সংকটাপন্ন রোগীদের আরও বেশি সুচিকিৎসা প্রদান করা সম্ভব হবে বলে উল্লেখ করেন তিনি।

[৮] এদিকে, বৃহস্পতিবার যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের জিনোম সেন্টারে ১শ’ ৯৪ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ১শ’ ৫৪ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। অপরদিকে, ৯৩ জনের অ্যান্টিজেন পরীক্ষায় ৪০ জনের শনাক্ত হয়েছে করোনা। গত ২৪ ঘণ্টায় দু’জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় আক্রান্তের সংখ্যা আট হাজার নয়শ’ ৯০ জন। সুস্থ হয়েছে ছয় হাজার সাতশ’ ৪০। মৃত্যু হয়েছে একশ’ জনের।

[৯] হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার আরিফ আহমেদ জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালে তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। তারা হলেন, শহরের রেলগেট এলাকার মনোয়ারা বেগম (৬৫), নিউমার্কেট এলাকার পাপিয়া খাতুন (৬০) ও চাঁচড়ার জাহাঙ্গীর হোসেন (৩৮)। এদের মধ্যে জাহাঙ্গীর হোসেন ইয়োলোজোনে এবং বাকি দু’জনের রেডজোনে মৃত্যু হয়েছে।

[১০] ১৬ জুন রেলগেট এলাকার মনোয়ারা বেগম করোনায় আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ১৭ জুন বিকেলে রেডজোনে তার মৃত্যু হয়।

[১১] ১৫ জুন নিউমার্কেট এলাকার পাপিয়া করোনা উপসর্গ নিয়ে হাসপাতালের ইয়োলোজোনে ভর্তি হন। ১৬ জুন তার করোনা শনাক্ত হলে রেডজোনে প্রেরণ করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাতে তার মৃত্যু হয়।

[১২] অপর দিকে, ১৭ জুন সকালে চাঁচড়ার জাহাঙ্গীর হোসেন করোনার উপসর্গ নিয়ে হাসপাতালের ইয়োলোজোনে ভর্তি হন। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সকাল ৯টা ৪৫ মিনিটে তার মৃত্যু হয়।

[১৩] তিনি আরও জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় রেডজোনে নতুন করে ২৬ জন ভর্তি হয়েছেন। ছাড়পত্র নিয়েছেন নয়জন। মোট চিকিৎসাধীন ৯১ জন। ইয়োলোজোনো ২৪ ঘণ্টায় ভর্তি হন ৩২ জন। ছাড়পত্র নিয়েছেন ১৬ জন। মোট চিকিৎসাধীন ৪০ জন।

[১৪] হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, করোনা চিকিৎসাসেবা পরিচালনায় সাজেদা ফাউন্ডেশন থেকে ১০ জন চিকিৎসক, ১০ জন নার্স, প্যারামেডিকেল ডিপ্লোমাধারী ১২ জন ব্রাদার এবং ১০ জন ওয়ার্ডবয় ও পরিচ্ছন্নতা কর্মী আগামী দু’ মাসের জন্যে দেয়া হচ্ছে। এছাড়া পাঁচটি হাইফ্লো নাজাল যন্ত্রসহ অত্যাধুনিক যন্ত্রপাতি, অক্সিজেন, ওষুধসহ বিভিন্ন ধরনের সরঞ্জামও সরবরাহ করবে সংস্থাটি। সম্পাদনা: হ্যাপি

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত