প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আর রাজী: এ অন্ধ সংসারে মুক্তি কি কোনো দিন আসবে না!

আর রাজী : গত এক বছর ধরে মাঝে মাঝেই আমার শ্বাস নিতে বেশ কষ্ট হয়। আমার প্রত্যহিক কাজ সব ঠিক ঠাক চলে, আমি সুস্থ্য আছি। কোথাও কোনো অসুবিধা-বা অসুস্থতা সে অর্থে নেই। আমি নিজে থেকেই বুঝতে চেষ্টা করছিলাম কেন এমন হয়? দুঃস্বপ্ন দেখি খুব। প্রায়ই স্বপ্নে দেখি, আমাদের ফ্ল্যাটের দুই কেয়ারটেকার অস্ত্রধারী সঙ্গী-সাথীদের নিয়ে আমাদের ফ্ল্যাট দখল নিয়ে নিয়েছে। এই দখলটা অদ্ভুত! আমাদের তাড়িয়ে দেয়নি। মালিকানার দাবিও তাদের নেই। কেবল তারা যেভাবে চালায়, সেভাবেই চলতে হয়। বাজার-সদাই ইত্যাদি সব তাদের দিয়েই করাতে হয়। তাদের বেতন-কমিশন সব তারাই ঠিক করে নিচ্ছে। তারাই যেন ফ্ল্যাট-সমিতির প্রেসিডেন্ট-সেক্রেটারি-ক্যাশিয়ার!

তাদের ইচ্ছে অনুসারেই আমাদের চলতে হচ্ছে। যদি তাদের কেউ বাধা না দেয় তাহলে কারই কোনো সমস্যা নেই। কিন্তু কালেভদ্রে কেউ তাদের অপছন্দের কথা কিছু বললেই তাকে গুম করে ফেলে। সেদিন স্বপ্নে দেখলাম, তাদের সাপ্লাই দেওয়া ইলিশ মাছ খাবে না বলায় ফ্ল্যাটমালিক একজনকে সে কি মার! প্রায়ই এই স্বপ্ন সিরিজের মতো দেখি। তারপর ভয়ানক মন খারাপ নিয়ে ঘুম ভাঙে। ঘুম ভাঙার পর আমার দম বন্ধ হয়ে আসার অনুভূতি হয়। সকালে ছাড়াও অন্য সময় অন্য কিছু কারণেও দমবন্ধ, একটা অস্বস্তি কাজ করে প্রায়ই।

দমবন্ধ হয়ে আসার এই অনুভূতি কেন হয় তা নিয়ে আমার একটা সন্দেহ ছিলো। বেশ কয়েক মাস ধরে বিভিন্ন কিছুর সঙ্গে নিজের মানসিক অভিঘাতের সম্পর্কটা মেলাতে চেষ্টা করছিলাম। সেই সন্দেহ যেন এবার সত্য হয়ে ধরা দিলো। খেয়াল করলাম, ত্ব-হা আদনান নিঁখোজ হওয়ার খবরটা শোনার পর থেকে আমার আবার এই দমবন্ধ হয়ে যাওয়ার মতো শ্বাস কষ্ট শুরু হয়েছে। বুকটা যেন ভেতর দিকে চেপে বসে যাচ্ছে। আমি মাঝে মাঝে মুখ দিয়ে শ্বাস নিতে বাধ্য হচ্ছি।

এ এক ভয়ানক অনুভূতি, প্রায়ই মনে হয় শ্বাস নিতে না পারতে পারতে আমি মরে যাবো। এখন আমি প্রায় নিশ্চিত, যখনই কেউ নিখোঁজ হওয়ার খবর পাই, আমার ঘুম টুটে যায়, আর তখনই আমার শ্বাস গ্রহণের কষ্ট শুরু হয়! আমি আমার নিত্যকর্ম দূরে রেখে তখন শ্বাস-প্রশ্বাস স্বাভাবিকভাবে নেওয়ার চেষ্টায় সব মনোযোগ দিয়ে চলি। আর ভাবি, কী যে করি! কী সে যে এই যন্ত্রণা থেকে মুক্তি? আর কতো দিন এভাবে টিকে থাকা যাবে! ফেসবুক থেকে

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত