শিরোনাম

প্রকাশিত : ১২ জুন, ২০২১, ১১:২৩ রাত
আপডেট : ১২ জুন, ২০২১, ১১:২৩ রাত

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

[১] পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের প্রথম চেয়ারম্যান মনোনয়ন চূড়ান্ত

চৌধুরী হারুনুর রশীদ: [২] পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন চূড়ান্ত করেছে সরকার। এতে রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি নিখিল কুমার চাকমাকে মনোনীত করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

[৩] এদিকে বিষয়টি হঠাৎ পার্বত্য অঞ্চলের রাজনৈতিক অঙ্গনে আলোচনামুখর করেছে। ফেসবুকসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নিখিল কুমার চাকমাকে ব্যাপক হারে অভিনন্দন জানানো হচ্ছে। আনুষ্ঠানিক ঘোষণায় যে কোনো মুহূর্তে সরকারি প্রজ্ঞাপন জারি হতে পারে সূত্রে বলা হচ্ছে।

[৪] পার্বত্য চট্টগ্রামের উন্নয়নে ১৯৭৬ সালের ১৪ জানুয়ারি পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড প্রতিষ্ঠা করে সরকার। প্রতিষ্ঠার ৪৫ বছরের মধ্যে প্রায় তেত্রিশ বছর ধরে বোর্ডের চেয়ারম্যান ছিলেন আমলা। ১৯৯৭ সালের ২ ডিসেম্বর স্বাক্ষরিত পার্বত্য শান্তিচুক্তিতে একজন যোগ্য উপজাতীয় জনপ্রতিনিধিকে উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান নিয়োগ দেওয়ার শর্ত প্রতিপালনে ১৯৯৮ সালের ৭ অক্টোবর তৎকালীন বান্দরবানের সংসদ সদস্য ও বর্তমান পার্বত্য মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিংকে প্রথমবারের মতো জনপ্রতিনিধি হিসেবে উপমন্ত্রীয় মর্যাদা ও সুযোগ-সুবিধা দিয়ে পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান নিয়োগ দেয় তৎকালীন আওয়ামী লীগ সরকার।

[৫] পরবর্তীতে ২০০৯ সালে প্রতিমন্ত্রী মর্যাদায় আবার এ বোর্ডের চেয়ারম্যান নিয়োগ পান তিনি। তার মাঝখানে ২০০১ সালে বিএনপি সরকার ক্ষতায় গেলে তৎকালীন খাগড়াছড়ির সংসদ সদস্য আবদুল ওয়াদুদ ভূঁইয়াকে উপমন্ত্রী মর্যাদায় পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান নিয়োগ দেয় বিএনপি জোট সরকার।

[৬] সূত্র জানায়, তিন পার্বত্য জেলার আর্থ-সামাজিক ও অবকাঠামো উন্নয়নে পরিচালিত গুরুত্বপূর্ণ সরকারি প্রতিষ্ঠান পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান পদটি গত প্রায় ৩ মাস শূন্য থাকায় বোর্ডের দাপ্তরিক ও প্রশাসনিক কাজে বিভিন্ন সমস্যার সৃষ্টি হচ্ছিল।

সর্বশেষ ১৮ মার্চ বোর্ডের চেয়ারম্যান পদ হতে বিদায় নেন, সাবেক সচিব নববিক্রম কিশোর ত্রিপুরা। সরকারের চুক্তিভিত্তিক নিয়োগে দীর্ঘদিন পদটিতে দায়িত্বে ছিলেন তিনি। নববিক্রমকে ২০১৩ সালে পুলিশের অতিরিক্ত মহাপরিচালক থেকে পদায়ণ দেওয়া হয়, পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব পদে। একই সঙ্গে পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান নিয়োগ দেওয়া হয় তখন।

পরবর্তীতে ২০১৮ সালের মার্চে তিন বছর মেয়াদে তাকে আবার বোর্ডের চেয়ারম্যান নিয়োগ দেয় সরকার। মেয়াদ শেষে ১৮ মার্চ বিদায় নেন তিনি। এর পরপরই পদটিতে জনপ্রতিনিধি নিশ্চিত করার দাবি ওঠে। এতে মনোনয়ন পেতে বেশ কয়েক জনপ্রতিনিধি ও রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব লবিং-তদবির শুরু করেন। যাদের মধ্যে সরকার সর্বশেষ সাবেক জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নিখিল কুমার চাকমা চূড়ান্ত করেছে বলে শোনা যাচ্ছে। অন্যদের মধ্যে খাগড়াছড়ির সংরক্ষিত আসনের নারী সংসদ সদস্য বাসন্তী চাকমা ও সাবেক সচিব সুদত্ত চাকমা তদবিরে ছিলেন বলে জানা যায়।

সম্পাদনা : মারুফ হাসান

  • সর্বশেষ