প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] পুলিশ সুপার মোখলেছুর রহমানের ভূমিকায় পাল্টে গেছে নীলফামারীর আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি

স্বপ্না আক্তার: [২] সম্প্রতি চাঞ্চল্যকর বেশ কয়েকটি হত্যা মামলায় গুরুত্বপূর্ণ দিক-নির্দেশনা দেয়ায় অভিযুক্তদের চিহ্নিত করে আইনের আওতায় আনতে সক্ষম হয়েছে পুলিশ।

[৩]এমনকি দফায় দফায় ভূয়া পুলিশ সুপার, ডিবি, সিইআইডি কিংবা ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের পরিচয়ে মানুষের সঙ্গে প্রতারণাকারী চক্র আটক হয়েছে গোয়েন্দা তৎপরতায়।

[৪] গ্রামগঞ্জে আইনি সেবা জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিতে ইউনিয়ন পরিষদ ও পৌরসভাগুলোতে চালু রেখেছে ৭৪টি বিট পুলিশিং সেন্টার। দুর্নীতিও কমছে সমান তালে।

[৫] পুলিশ সুপার মোখলেছুর রহমানের দিক নির্দেশনায় কমে গেছে সন্ত্রাস বাহিনী, জমি নিয়ে জোরজবর দখল, চুরি ,ডাকাতি, জুয়া, মাদকাসক্ত, যৌতুক ও নারী নির্যাতন, অবৈধ গরু পাচার, জঙ্গি সংগঠন, অপপ্রচারসহ বিভিন্ন অপরাধ।

[৬] করোনা ভাইরাসের প্রকোপে বিপর্যস্ত হতদরিদ্র, অসহায়, দুস্থ ও খেটে খাওয়া মানুষদের পাশে দাড়িয়েছেন তিনি। নিজস্ব অর্থায়নে রাতের আধারে ছিন্নমূল মানুষ গুলোকে খুঁজে বের করে বিলিয়ে দিচ্ছেন খাদ্য সামগ্রী। মাস্ক বিতরণের তো বিকল্প নেই।

[৭] তার নির্দেশনায় প্রতিনিয়তই চলছে অসহায় মানুষদেরকে মাস্ক বিতরণ। করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত ব্যক্তিদের পাশে দাড়াতে রেখেছেন কঠোর নির্দেশনা।

[৮] এমনকি করোনা অক্রান্ত মৃত্যু ব্যক্তিদের দাফন কাফনের জন্য গঠন করে দিয়েছেন পুলিশের ১০সদস্য বিশিষ্ট ৭টি কমিটি। মানব সেবায় জড়িয়ে পড়া এই মানবিক পুলিশ সুপার নিজেই হয়েছিলেন করোনায় আক্রান্ত। সুস্থ হওয়ার পরেও বন্ধ রাখেননি মানব সেবার কাজ।

[৯] পুলিশ সুপার মোখলেছুর রহমান বলেন, আমরা জনগনের সেবায় কাজ করি। জনগণের কাছে যাইতে ভয় পাই না। মানুষ পুলিশকে শত্রু ভাবার কোন সুযোগ নাই। বন্ধু হয়ে জনগণের সেবায় কাজ করতে চাই। সাধারণ মানুষ যাতে করোনা ভাইরাস ভয় না সেজন্য পুলিশ বাহিনী কঠোর তৎপর। দুর্নীতি কমাতে আমরা পুরো জেলায় সিসি টিভি ক্যামেরা আওতায় আনা হচ্ছে।

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত