প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] ডিপিএলে দুবাই শ্রমিক থেকে সেরা বোলিংয়ের রেকর্ড গড়লেন সালাউদ্দিন শাকিল

মাহিন সরকার : [২] জীবিকার তাগিদে মধ্যপ্রাচ্যের (দুবাই) তপ্ত মরুভূমিতে এক সময় শ্রমিকের কাজ করতে হয়েছে তাকে। যৌবনের শুরুতে সেই কঠিন সময় পার করে এসে এবার বল হাতে ক্রিকেট মাঠে ঝড় তুলছেন তিনি। বলছি শেখ জামালের হয়ে ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে খেলা সালাউদ্দিন শাকিলের কথা।

[৩] বৃহস্পতিবার ১০ জুন সাভারের বিকেএসপির চার নম্বর মাঠে পারটেক্সের বিপক্ষে সেরা বোলিংয়ের রেকর্ড গড়েন শাকিল। ৪ ওভার বোলিংয়ে মাত্র ১৬ রান খরচায় ৫ উইকেট নেন তিনি। যা বাংলাদেশের স্থানীয় ক্রিকেটারদের মধ্যে ঘরোয়া টি-টোয়েন্টিতে তৃতীয় সেরা বোলিং ফিগারের রেকর্ড। আর চলমান ডিপিএলে এটা সেরা বোলিংয়ের রেকর্ড।

[৪] অথচ এই শাকিলই ছিলেন দুবাই শ্রমিক। সালাউদ্দিনের বিদেশ যাত্রা ২০০৫ সালে। তখন সবে দশম শ্রেণিতে উঠেছেন। এসএসসি পরীক্ষার আগেই মধ্যপ্রাচ্যে ভাগ্য বদলে পাড়ি দেওয়া শ্রমিক বনে যান তিনি। দেশে থাকতে টেপ টেনিসে খেলতেন। মধ্যপ্রাচ্যে যাওয়ার পর এসব কিছুই শিকেয় উঠে।

[৫] দুবাইয়ে চার বছরের শ্রমিক জীবনের কঠিন লড়াইয়ের দিনে ক্রিকেট ব্যাট বল স্পর্শ করার সুযোগ পাওয়ার কথা নয়, সেটা হয়ওনি। তবু ওই আবদ্ধ জীবনেও মনের গহিনে ছিল ক্রিকেট, মুক্তির জন্য মন করত ছটফট।

[৬] মনের গহিনের সেই স্বপ্নই হয়ত তাড়িয়ে নিয়ে এসেছে তাকে। ২০০৯ সালে খরচ বাঁচাতে কোম্পানি ছুটিতে দেশে পাঠিয়ে দিলে যেন হাঁফ ছেড়ে বাঁচেন তিনি।

[৭] দেশে দুই তিন বছর বেকার থাকার পর ২০১২ সালে ফের টেপ টেনিস খেলা শুরু করেন। খ্যাপ খেলে দুই-তিন হাজার টাকা পেতেন। পরিবারকে বুঝিয়ে ক্রিকেটে কিছু একটা করার দিকে মন দেন, তখনই প্রথম হাতে নেন ক্রিকেট বল। প্রথমে তৃতীয় বিভাগ দিয়ে শুরু২০১৩ সালে দ্বিতীয় বিভাগ খেলেন নারায়ণগঞ্জ একাডেমির হয়ে। ২০১৪ সালে ইনজুরির কারণে খেলতে পারেননি। ২০১৫ সালে ইন্দিরা রোডের হয়ে প্রথম বিভাগ খেলেন। পরবর্তীতে বন্ধু মেহেরাব হোসেন জোসি ব্যবস্থা করে দেন প্রিমিয়ার লিগে। ওই বছর টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটের লিগে সেরা বোলার হন।

[৮] সালাউদ্দিন সর্বোচ্চ পর্যায়ে উঠে এসেছেন কোচ মিজানুর রহমান বাবুলের হাত ধরে। ২০১৭ প্রিমিয়ার লিগে ফতুল্লায় প্রাইম দোলেশ্বরের নেটে বল করছিলেন তিনি। দোলেশ্বর কোচ মিজানুর খেলোয়াড়ি জীবনে নিজেও ছিলেন পেসার। বাঁহাতি সালাউদ্দিনের কদর বুঝতে তাই দেরি করেননি।

[৯] প্রিমিয়ার লিগে খেলানোর পর বিসিএলেও তার খেলার ব্যবস্থা করে দেন মিজানুর। মধ্যাঞ্চলের কোচ ওয়াহিদুল গনিকে বলে পঞ্চম রাউন্ডের ম্যাচ খেলতে সালাউদ্দিনকে পাঠিয়ে দেন রাজশাহীতে। সেই থেকে শুরু আর পেছনে ফিরতে তাকাতে হয়নি। পরবর্তীতে বিপিএলেও খেলেছেন তিনি।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত