প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

রিকশাচালক থেকে হাজার কোটি টাকার মালিক হলেন এরশাদ !

দেশ রূপান্তর : রিকশাচালক থেকে হাজার কোটি টাকার মালিক বনে যাওয়া সেই এরশাদ আলীর বিরুদ্ধে মামলা করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। তার মালিকানাধীন এরশাদ গ্রুপ ভুয়া ব্যাংক গ্যারান্টিতে এবি ব্যাংকের ১৭৬ কোটি টাকা আত্মসাৎ করার অভিযোগে মামলাটি করা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার দুদকের সমন্বিত জেলা কার্যালয় ঢাকা-১-এ মামলাটি করেন কমিশনের উপসহকারী পরিচালক আবুল কালাম আজাদ।

মামলায় এরশাদ গ্রুপের স্বত্বাধিকারী মো. এরশাদ আলীসহ ১৭ জনকে আসামি করা হয়েছে।

এজাহারে বলা হয়, প্রতারণার আশ্রয় নিয়ে অপরাধজনক বিশ্বাস ভঙ্গ করে এরশাদ গ্রুপ স্বেচ্ছায়-স্বজ্ঞানে জাল ওয়ার্ক অর্ডার প্রস্তুত করে। তারা সাতটি ব্যাংক গ্যারান্টির মাধ্যমে ১৭৬ কোটি ১৮ লাখ টাকা আত্মসাৎ করে।

এরশাদ আলী ছাড়া মামলার অন্য আসামিরা হলেন এবি ব্যাংকের ইসলামী ব্যাংকিং শাখার সাবেক ব্যবস্থাপক এবিএম আবদুস সাত্তার, সাবেক এসভিপি রিলেশনশিপ ম্যানেজার ইসলামী ব্যাংকিং শাখা আবদুর রহিম, আনিসুর রহমান, এইক শাখার ভিপি শহিদুল ইসলাম, এভিপি রুহুল আমিন, এবি ব্যাংকের সাবেক এমডি মসিউর রহমান, শামীম আহমেদ চৌধুরী, ইভিপি ও হেড অব সিআরএম ওয়াসিক আফরোজী, মুফতি মুস্তাফিজুর রহমান (স্বপন), সাবেক এসইভিপি সালমা আক্তার, সাবেক এভিপি এমারত হোসেন ফকির, সাবেক প্রিন্সিপাল অফিসার তৌহিদুল ইসলাম, এসভিপি শামীম-এ-মোরশেদ, ভিপি খন্দকার রাশেদ আনোয়ার, এভিপি সিরাজুল ইসলাম ও সাবেক ভিপি ও ক্রেডিট কমিটির সদস্য মাহফুজ-উল-ইসলাম।

এজাহার অনুযায়ী, এ ঋণের ক্ষেত্রে শাখা ব্যবস্থাপকসহ প্রধান কার্যালয়ের সঠিক তদারকি ছিল না। জালিয়াতির অভিযোগ ওঠায় এরশাদ গ্রুপের চেয়ারম্যান এরশাদ আলী ও তার ভাই ব্যবস্থাপনা পরিচালক আমিনুল ইসলামের অবৈধ সম্পদের অনুসন্ধানও করছে দুদক।

রাজশাহী মহানগরীর রিকশাচালক থেকে রিকশাচালকের সর্দার হওয়া এরশাদ আলী অবৈধভাবে পদ্মার বালু উত্তোলন, বিভিন্ন প্রকল্পে পাথর সরবরাহসহ বিভিন্ন উপায়ে বিপুল অর্থবিত্তের মালিক বনে যান বলে অভিযোগ রয়েছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত