প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১]খুলনায় করোনায় আরও ৬ জনের মৃত্যু

শরীফা খাতুন শিউলী: [২]খুলনায় করোনা ভাইরাসের দাপোট আবারও ছড়িয়ে পড়ছে। প্রতিনিয়ত মৃত্যুর মিছিল দীর্ঘ হচ্ছে। মঙ্গলবার সকাল ৭টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত ১২ ঘণ্টায় খুলনা করোনা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ৬ জনের মৃত্যু হয়।

[৩]মৃতরা হলেন- শরণখোলার আব্দুল হাই শিকদার (৮০), যশোরের কাজী সাইদুর রহমান (৭৪), কয়রার আয়জান বেগম (৭৫), ফুলতলার আব্দুল মালেক (৭৫)ও তুষার কান্তি (৫৮) এবং মোড়েলগঞ্জের সেলিম জমাদ্দার (৬৫)। এ নিয়ে খুলনা করোনা হাসপাতালে ২৯৪ জনের মৃত্যু হয়।

[৪]খুলনা করোনা হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার বিকেল ৫টা ৫৫ মিনিটে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বাগেরহাটের শরণখোলার বানিয়াখালী এলাকার আব্দুল হাই শিকদার (৮০) মৃত্যুবরণ করেন। তিনি সোমবার (০৭ জুন) করোনায় আক্রান্ত অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি হন।

[৫]একইসময়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় যশোর সদরের মৃত তবিবুর রহমানের ছেলে কাজী সাইদুর রহমান (৭৪) মারা যান। তিনি ৭ জুন খুলনা করোনা হাসপাতালে ভর্তি হন।

[৬]এদিন দুপুর পৌনে ৩টায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বাগেরহাটের মোড়েলগঞ্জের কেয়ারবাজার এলাকার মৃত সাত্তার জমাদ্দারের ছেলে সেলিম জমাদ্দার (৬৫) মারা। তিনি ৫ জুন করোনা হাসপাতালে ভর্তি হন।

[৭]এছাড়া দুপুর পৌনে ১টার দিকে খুলনার ফুলতলা উপজেলার বানিয়া পুকুর এলাকা তুষার কান্তি (৫৮) মারা যান। তিনি ওই এলাকার মতি লালের ছেলে। তিনি ৪ জুন খুলনা করোনা হাসপাতালে ভর্তি হন।

[৮]একই সময়ে করোনা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আয়জান বেগম (৭৫) নামে আরেক রোগীর মৃত্যু হয়। তিনি খুলনার কয়রা উপজেলার ষোলহালিয়া গ্রামের মৃত আব্দুল লতিফের স্ত্রী। ৬ জুন করোনায় আক্রান্ত অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি হন।

[৯]মঙ্গলবার সকাল সোয়া ৭টায় করোনা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আব্দুল মালেক (৭৫) নামের আরেক রোগীর মৃত্যু হয়। তিনি খুলনার ফুলতলা উপজেলার সাহেব আলীর ছেলে। ৫ জুন খুলনা করোনা হাসপাতালে ভর্তি হন।

[১০]খুমেকের উপাধ্যক্ষ ডা. মেহেদী নেওয়াজ বলেন, মঙ্গলবার রাতে পিসিআর মেশিনে ২৭৯ নমুনায় ৮১ জনের পজিটিভ এসেছে। যার মধ্যে খুলনার ১৯৩ নমুনায় ৩৯ জন শনাক্ত হয়েছেন। এছাড়া বাগেরহাটে ২৬ জন, যশোরে ২ জন, পিরোজপুরে ২ জন, গোপালগঞ্জে একজন ও ঝিনাইদহে একজন রয়েছেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত