প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] বিদ্যুতের ঘাটতি মেটাতে পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপনের পরিকল্পনা করছে ইরাক

জুয়েল রানা: [২] নিজেদের বিদ্যুতের তীব্র ঘাটতি মেটাতে পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র করার পরিকল্পনা করছে ইরাক।বিশ্বের দ্বিতীয় তেল উৎপাদক প্রতিষ্ঠান ওপেক ইতিমধ্যে তীব্র বিনিয়োগের অভাবে ভুগছে।ব্লুমবার্গ
[৩] পারমাণবিক এই চুল্লি তৈরিতে দেশটি যথেষ্ঠ আর্থিক সমস্যায় ভুগছে। ইরাক প্রায় ১১ গিগাওয়াট উৎপাদন করতে সক্ষম আটটি চুল্লি তৈরি করতে চাইছে বলে জানিয়েছেন ইরাকি রেডিও একটিভ সোর্স রেগুলেটরি অথরিটির চেয়ারম্যান কামাল হুসেন লতিফ।
[৪] দক্ষিন কোরিয়া ও রাশিয়ার অভিজ্ঞ দলের সাথে আলোচনা শেষে তিনি জানান এই চুল্লি তৈরির জন্য সাম্ভাব্য ৪০ বিলিয়ন ডলার খরচ হবে।
[৫] লতিফ বাগদাদে তার কার্যালয়ে এক সাক্ষাতকারে বলেন যে, পারমানবিক বিদ্যুৎ উৎপাদন না করতে পারলে আমরা ২০৩০ সালের মধ্যে তীব্র বিদ্যুৎ সংকটে পড়ব।অস্থিতিশীল তেলের বাজারের কারণে ইরাক আরো সমস্যায় পড়ছে।
[৬] আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের তথ্য অনুসারে এখন প্রতি ব্যারেল তেলের মুল্য ৭০ ডলার করে।
[৭] তিনি আরো বলেন, ইরাকি মন্ত্রিসভা রাশিয়ার রোসাতাম কর্পোরেশনের সাথে চুল্লি তৈরিতে সহযোগিতা করার জন্য একটি চুক্তি করছে। পারমাণবিক কর্তৃপক্ষ চুল্লির জন্য ২০ টি সাম্ভাব্য স্থান পছন্দ করেছে।
[৮] উল্লেখ্য, এটি ইরাকের প্রথম পারমাণবিক চুল্লি না। ৪০ বছর আগে ইসরাইলী বিমান হামলায় ইরাকের প্রথম পারমাণবিক চুল্লি বিধ্বস্থ হয়।

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত