প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] কানাডায় পাওয়া দুই শতাধিক শিশুর দেহাবশেষ নিয়ে পোপের সমবেদনা প্রতাখ্যান করলেন আদিবাসী নেতারা

সুমাইয়া ঐশী: [২] দাবি, কেবল দুঃখ প্রকাশই যথেষ্ট নয়।

[৩] গত মাসে কানাডার একটি স্কুলে মাটির নিচ থেকে ২১৫ জন শিশুর দেহাবশেষ পাওয়া যায়। সেটি ছিলো চার্চের আওতায় পরিচালিত সাবেক একটি আবাসিক স্কুল। এর কার্যক্রম ১৯৭৮ সালেই বন্ধ হয়ে যায়। এ ঘটনায় শোক প্রকাশ করে রোববার পোপ ফ্রান্সিস বলেন, এ ঘটনায় আমরা সকলেই ব্যাথিত। তার এই মন্তব্য প্রত্যাখ্যান করেছে ঐ স্কুলের সাবেক শিক্ষার্থী এবং আদিবাসী নেতারা। রয়টার্স

[৪] এনিয়ে সাসকাচেওয়ানের সার্বভৌম আদিবাসী ফেডারেশনের প্রধান ববি ক্যামেরুন বলেন, এ ঘটনায় আমরা সবাই ব্যাথিত। এনিয়ে আলাদা করে বলার প্রয়োজন নেই। তার প্রশ্ন, পোপের জন্য কি এটা বলা এতটাই কঠিন ছিলো যে, ঐ সময় আমাদের সংস্থার অন্তর্ভুক্ত স্কুলটিতে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে করা অত্যাচারের জন্য আমরা দুঃখ প্রকাশ করছি? বিষয়টি স্পষ্টভাবে কেনো তিনি বলতে পারছেন না?

[৫] একই অভিযোগ স্কুলটির সাবেক শিক্ষার্থী সা হিল থুতেরও। ৭২ বছর বয়সী সা হিল বলেন, ঐ স্কুলের ভয়ানক অভিজ্ঞতাগুলো আমি ভুলতে পারবো না। কিন্তু এনিয়ে পোপ একবারও বলেননি, চার্চের পরিচালিত ঐ স্কুলে কয়েক হাজার শিক্ষার্থী শারীরিক ও যৌন নির্যাতনের শিকার হয়েছে। এনডিটিভি, দ্য ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস

[৬] কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো শুক্রবার বলেন, এই ঘটনার দায় চার্চ কর্তৃপক্ষকেই নিতে হবে। পোপের বক্তব্য যথেষ্ট ছিলো না বলে রোববার মন্তব্য করেছেন আদিবাসী বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ক্যারোলিন বেনেটও। সম্পাদনা: আসিফুজ্জামান পৃথিল

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত