প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] গাভাসকার স্বীকার করলেন ভাল ক্রিকেট দর্শক নন বলে কখনও কোচিং করেননি

রাশিদুল ইসলাম : [২] কোচ না হলেও অতীতে একাধিক তারকা ক্রিকেটারকে টিপস দিয়ে অবশ্য সাহায্য করতে কার্পণ্য করেননি। যদিও তিনি জানালেন, বতর্মান ভারতের জাতীয় দলের কোনো ক্রিকেটার অবশ্য তার সাহায্য চাননি। ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস

[৩] জাতীয় দল থেকে অবসরের পর অনেক ক্রিকেটারই কোচ হিসেবে নতুন জীবন শুরু করেন। তবে সুনীল মনোহর গাভাসকার মোটেই সেই পথ বেছে নেননি। ধারাভাষ্যকার হিসাবে নতুন ভুমিকাতেও সফল হয়েছেন। এর কারণ প্রতিটি বল ধরে ধরে ক্রিকেট দেখার ধৈর্য তার ছিল না যা তিনি নিজেই স্বীকার করেছেন।

[৪] আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে টেস্টে ১০,১২২ রান সহ ১৩ হাজারেরও ওপর রান। বিশ্বে সর্বকালের সেরাদের একজন। কোচ না হলেও তিনি একবার জাতীয় দলের উপদেষ্টার পদে ছিলেন। ২০০৪ সালে সফরকারী অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে গাভাসকার জাতীয় দলের উপদেষ্টা হন। তবে তারপর থেকে জাতীয় দলে কোনো রকম ম্যানেজমেন্টের ভূমিকায় দেখা যায়নি তাকে।

[৫] গাভাসকার ইউটিউব চ্যানেলে জানালেন, আমি কখনই ভালো ক্রিকেট দর্শক ছিলাম না। এমনকি যখন আমি খেলতাম তখনও। আউট হয়ে যাওয়ার পর নিজের আউটটাও টানা দেখতে পারতাম না। হয়ত কিছুক্ষণ দেখলাম। তারপর ড্রেসিংরুমে গিয়ে চেঞ্জ করে, অথবা কিছু পরে এসে কোনো চিঠির রিপ্লাই দিয়ে এসে আরো একবার দেখলাম। তাই গুন্ডাপ্পা বিশ্বনাথের মত বল ধরে ধরে একদম ক্রিকেট দেখতে পারি না। বিশ্বনাথ, আমার কাকা মাধব শাস্ত্রী আবার বল ধরে ধরে ম্যাচ দেখেন। আর কোচ বা নির্বাচক হওয়ার অন্যতম প্রধান শর্তই হল বল ধরে ধরে ম্যাচ ফলো করতে হয়। এই কারণেই কখনো কোচ হওয়ার কথা ভাবিনি।

[৬] সানি জানাচ্ছেন, শচীন, শেওয়াগ, দ্রাবিড়, লক্ষ্মণ, সৌরভ টিপস নিয়েছে। এখনকার কেউ নয়।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত