প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] সীমান্তবর্তী জেলাগুলোতে বাস চলছে খুবই কম, গণপরিবহন ৭০ ভাগ আর দূরপাল্লার ৪৫ ভাগ বাস চলছে

সুজিৎ নন্দী: [২] সারাদেশের জেলা-উপজেলা ও গ্রামঞ্চলে করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার পরে দেশের দূরপাল্লার ও গণপরিবহন চলাচল অনেকাংশে কমে গেছে। বিশেষ করে সীমান্তবর্তী এলাকার করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ায় ১৪টি জেলাতে নূন্যতম ১০ ভাগ বাস চলছে।

[৩] রোববার সারাদেশে দূরপাল্লার মোট বাসের ৫০ ভাগ চলেছে। এবং প্রতিটি বাসে যাত্রী ছিলো ৬০ ভাগ। এরই মধ্যে রাজশাহী ও খুলনা থেকে দূরপাল্লার বাস খুবই কম চলছে।

[৪] সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক খন্দকার এনায়েত উল্লাহ বলেন, রাজধানীতে করোনা পরিস্থিতি কিছুটা সহনীয় মাত্রায় থাকলেও জেলা শহরগুলোতে ব্যাপক ভাবে ছড়িয়ে পড়েছে। একারণে এই সকল জেলাগুলোতে গাড়ি যাচ্ছে না বললেই চলে। চালক-হেলপারদের প্রতি কঠোর নির্দেশনা মাস্ক ব্যবহার ও প্রতিটিপ শেষে হ্যান্ড ওয়াস দিয়ে হাত-পা পরিষ্কার করা। প্রতিনিয়ত পরিবহনগুলোতে জীবানুনাশক স্প্রে করা।

[৫] এদিকে সরকার থেকে নির্দেশনা গণপরিবহন ও দূরপাল্লার চলাচল সীমিত রাখার কার্যকর করা শুরু করেছি। পরিবহন মালিক সমিতি ও শ্রমিক ফেডারেশন নেতৃবৃন্দ এতথ্য জানায়।

[৬] সরেজমিনে দেখা যায়, দূর পাল্লার বাসে থার্মাল স্ক্যানার মেশিনে স্ক্যানিং করে ওঠা নামানোর ক্ষেত্রে ব্যবহারের কথা থাকলেও বাস্তবে কোন ভাবেই ব্যবহার করা হচ্ছে না।

[৭] বাস মালিক সমিতির কেন্দ্রীয় নেতা রমেশ চন্দ্র বলেন, জেলা বা বিভাগীয় শহর থেকে বাস চলছে কিন্তু খুবই কম। বাস মালিকরা পথে বসার উপক্রম। তবে করোনা প্রতিরোধে দূরপাল্লার প্রতিটি গাড়ি সায়েদাবাদ, গুলিস্তান-টিবিসি রোড়, ফুলবাড়িয়া ও মহাখালী বাস টার্মিনাল এবং প্রত্যেকটি গাড়ি পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখা হচ্ছে।

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত