প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে কোটি টাকা আত্মসাৎ, চক্রের তিন সদস্য গ্রেপ্তার

সুজন কৈরী: [২] রেলওয়ে, ব্যাংক, বিমান, কাস্টমস, পদ্মা সেতু ও জাহাজ কোম্পানিসহ বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকারির প্রলোভন দেখিয়ে নিরীহ লোকজনের কাছ থেকে কয়েক কোটি টাকা হাতিয়ে নেওয়া প্রতারক চক্রের তিন সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)।

[৩] গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন-চক্রের প্রধান ও আমানত আউটসোর্সিং জিব সার্ভিস অ্যান্ড সাপ্লায়ার্স নামক কোম্পানির এমডি জহিরুল ইসলাম, রিলেশনশিপ অফিসার সজিব ও এমডি জহিরুলের একান্ত সহকারী রাকিবুল বারী।

[৪] মঙ্গলবার রাতে রাজধানীর মিরপুর-১ নম্বরস্থ শাহ আলী প্লাজা থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হযেছে। ওই ভবনের ৯ম তলায় চাকচিক্যময় অফিস সাজিয়ে চাকরির নামে প্রতারণা করছিলেন গ্রেপ্তারকৃতরা। গ্রেপ্তারকৃতদের কাছ থেকে চাকরি প্রার্থীদের ছবিসহ বিভিন্ন কাগজপত্র উদ্ধার করা হয়েছে।

[৫] বুধবার দুপুরে মালিবাগে সিআইডি কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে সংস্থাটি অতিরিক্ত ডিআইজি শেখ ওমর ফারুক বলেন, গাজীপুরের বাসিন্দা মোহাম্মদ লোকমান হোসেন নামের একজন ভুক্তভোগী ফেসবুকে চাকরির বিজ্ঞাপন দেখে প্রতারকদের অফিসে যোগাযোগ করেন। সেখানে যাওয়ার পর স্বপ্নটা বড় হয়ে যায় এএসসি পাস লোকমানের। অফিস থেকে তাকে সহজেই সরকারি অফিসে অফিস সহকারী পদে চাকরির ব্যবস্থা করে দেওয়ার কথা বলা হয়। কিন্তু চাকরি পেতে হলে তাকে কয়েকটি ধাপ পার হতে হবে। প্রথমে ১ হাজার টাকা দিয়ে নিজের নাম এন্ট্রি করার কথা জানায় চক্রটি। এরপর অফিস থেকে ফোন করে লোকমানকে জানানো হয়, তার জন্য চাকরি রেডি। কিন্তু চাকরি পেতে হলে তাকে ৩ লাখ টাকা জমা দিতে হবে। কিন্তু এতো টাকা দেওয়ার সামর্থ্য নেই তার। এরপরও স্বজনদের কাছ থেকে ধারদেনা করে প্রতারকদের চাহিদা অনুযায়ী ৩ লাখ টাকা তুলে দেন চক্রের প্রধান জহিরুল ইসলামের হাতে। তারপরেই শুরু হয় দুর্ভোগ। চাকরির খোঁজে বারবার তিনি ওই অফিসে গেলেও কারোরই দেখা পাননি তরুণ লোকমান। ৪ মাস ঘোরার পর তিনি প্রতারিত হওয়ার বিষয়টি বুঝতে পারেন। এরপর মামলা করেন কাফরুল থানায়। ওই অভিযোগের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে প্রতারক চক্রের তিন সদস্যকে গ্রেপ্তার করা হয়

[৬] চক্রের সদস্যদের গ্রেপ্তারের খবর পেয়ে সিআইডি কার্যালয়ে জড়ো হন লোকমানের মতো আরও কয়েকজন তরুণ। তাদের সবাই মিরপুরের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী। তারা প্রতারক জহিরুলের অফিসে চাকরির খোঁজে গিয়ে প্রতারিত হয়েছে। ৪ হাজার থেকে ৩ লাখ পর্যন্ত টাকা দিয়ে প্রতারিত হয়েছেন তারা।

সর্বাধিক পঠিত