প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সিলেটে ঝুঁকিপূর্ণ সব মার্কেট ও ভবন আগামী ১০ দিন বন্ধ রাখার নির্দেশ

ডেস্ক নিউজ: সিলেটে দুই দিনে পাঁচ দফা ভূমিকম্পে দুটি ভবন হেলে পড়েছে। তাই সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবে ২৪টি ঝুঁকিপূর্ণ ভবন আগামী ১০ দিনের জন্য বন্ধ ঘোষণা করেছে সিটি করপোরেশন।

রোববার (৩০ মে) বিকেলে ঝুঁকিপুর্ণ ভবনগুলোতে সিটি করপোরেশনের অভিযানের পর এ তথ্য জানিয়েছেন মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। সূত্র: বার্তা নিউজ ২৪.কম, দৈনিক ইত্তেফাক

তিনি বলেন, ভূ-বিশেষজ্ঞদের মতে ছোট ছোট ভূমিকম্পের পর বড় ধরনের ভূমিকম্প হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। আর বড় ধরনের ভূমিকম্প হলে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে সিলেট। আর ছোট ভূকম্পনের পর ৭ থেকে ১০ দিনের মধ্যে ওই এলাকায় বড় ভূমিকম্পের আশঙ্কা থাকে। তাই এই বাড়তি সতকর্তা।

ঝুঁকিপুর্ণ এসব ভবনের তালিকায় মার্কেট, দোকানপাট, বাসাবাড়ি এবং পুরাতন সরকারি দফতরও রয়েছে।

মেয়র বলেন, ২০০৫ সালে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের বিশেষজ্ঞদের দিয়ে নগরীর ৩৫টি ঝুঁকিপূর্ণ ভবন চিহ্নিত করা হয়েছিল। পরে কয়েকটি ভবন ভেঙে দেওয়া হয়।

ঝুঁকিপুর্ণ ভবনগুলো হচ্ছে, জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের উত্তর পাশের কালেক্টরেট ভবন-৩, জেলরোডস্থ সমবায় ব্যাংক ভবন, মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তার সাবেক কার্যালয় ভবন, সুরমা মার্কেট, বন্দরবাজারস্থ সিটি সুপার মার্কেট, জিন্দাবাজারের মিতালী ম্যানশন, দরগাগেইটের হোটেল আজমীর, বন্দরবাজারের মধুবন সুপার মার্কেট, টিলাগড় কালাশীলের মান্নান ভিউ।

এছাড়া, নগরের শেখঘাট এলাকায় শুভেচ্ছা-২২৬ নম্বর ভবন, যতরপুরের নবপুষ্প ২৬/এ বাসা, চৌকিদেখির ৫১/৩ সরকার ভবন, জিন্দাবাজারের রাজাম্যানশন, খারপাড়ার মিতালী-৭৪, মির্জাজাঙ্গাল মেঘনা এ-৩৯/২, পাঠানটুলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, উত্তর বাগবাড়ির একতা ৩৭৭/৭ ওয়ারিছ মঞ্জিল, একই এলাকার একতা ৩৭৭/৮ হোসেইন মঞ্জিল, একতা-৩৭৭/৯ শাহনাজ রিয়াজ ভিলা, জেন্টস গ্যালারি, বনকলাপাড়া নূরানি-১৪, ধোপাদিঘীর দক্ষিণ পাড়ের পৌরবিপণী মার্কেট, ধোপাদিঘীরপাড়ের পৌর শপিং সেন্টার এবং পনিটুলা এলাকায় ১৬/১ নং আহাদ টাওয়ার।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত