প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] বঙ্গোপসাগরের আরো একটি “মোছন” মাছের দেখা মিললো উপকূলের হাটবাজারে

অমল তালুকদার : [২] দেশের দক্ষিণ উপকূলীয় জেলা বরগুনার হাটে বাজারে বর্তমানে একটি বড় সাইজের মাছের দেখা মেলে।
নানা সামুদ্রিক মাছের ভিড়ে দক্ষিণ উপকূলের মানুষের কাছে তেমন-ই একটি পরিচিত মাছ মোছন।

[৩] মাছটির দেহের গঠন অনেকটা বড় পাঙ্গাস অথবা আইড় মাছের মত। গায়ের রং হালকা বেগুনি কখনো কখনো খয়েরী কিংবা এ্যশ কালারও হয়ে থাকে। পেটের তলদেশটা হল্কা সাদা। সামুদ্রিক এই মোছন মাছটির চাহিদা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে এখানকার হাটে বাজারের ক্রেতাদের কাছে। স্থানীয় ব্যবসায়ী এবং জেলেদের সাথে কথা বলে জানা গেছে মাছটির বৈচিত্র্যপূর্ণ চরিত্র সম্পর্কে।

[৪] পাথরঘাটা পৌর শহরের মাছ বাজারে শনিবার দেখা মেলে এই মাছের। জামাল মিয়া বলেন এই মাছটি খেতে খুবই সুস্বাদু। এক একটি মাছ ১৮ থেকে ২০ কেজি পর্যন্ত হয়ে থাকে বলেও জানান জামাল।

[৫] এসময় অপর মাছব্যবসায়ী সহিদ মিয়া ১টি মোছন মাছ কাটছিলেন। তিনি ৪’শ টাকা কেজি দরে স্থানীয় বাজারের খরিদ্দারদের নিকট বিক্রি করছিলেন বলে দেখতে পাওয়া গেল।

[৬] বঙ্গোপসাগরের মাছ ধরা জেলে নিজাম জানান, নদীর বিশেষ বিশেষ স্থানে ভিন্ন ভিন্ন প্রজাতির মাছের বিচরণ চোখে পড়ে। এই মোছন মাছ যখন নদীর তলদেশ দিয়ে ছুটেচলে তখন একই সঙ্গে অসংখ্য মাছের ঝাঁক নিয়ে ছোটে।

[৭] অপর এক জেলে বলেন, যখন এই মাছ জেলেদের জালে ধরা পড়ে; তখন একসঙ্গে অসংখ্য মাছ ধরা পড়ে।

[৮] উপকূলের বিশেষজ্ঞরা বলেন, মরণব্যাধি ক্যান্সারের জন্য সামুদ্রিক খটক মাছ এবং এই মাছের তেল মানব দেহের অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ সহ বিভিন্ন রোগ থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য বিশেষ উপকারী। মুছন মাছসহ এমন বিভিন্ন সামুদ্রিক মাছ রয়েছে যা মানবদেহের বিভিন্ন রোগের জন্য বিশেষভাবে কার্যকরী। সম্পাদনা: জেরিন আহমেদ

সর্বাধিক পঠিত