প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

পরপর ৪ বার মৃদু ভূমিকম্প! বড় বিপদের সম্ভাবনা? নাকি বিপদমুক্ত হলাম আমরা?

মোস্তফা কামাল পলাশ: সিলেটে অল্প সময়ের ব্যবধানে ৪ টি ভূমিকম্প শুধু সিলেট না সম্ভবত সারা বাংলাদেশের জন্য আশীর্বাদ বা সৌভাগ্য বয়ে আনল বলে মনে করি।

জাতিসংঘের বৃত্তি নিয়ে ইতালির The Abdus Salam International Centre for Theoretical Physics থেকে Earth System Physics বিষয়ে ১ বছর মেয়াদী যে Post Graduate Diploma (মাস্টার্সের সমমান) করেছি। তার ৫০% ছিলও আবহাওয়া পদার্থ বিজ্ঞান ও ৫০% ছিলও ভূমিকম্প বিজ্ঞান। সেই পড়ালেখার অভিজ্ঞতার আলোকে বলতে চাই যদি আগামী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে আর কোন ভূমিকম্প না হয় (সম্ভাবনা উড়িয়ে দেওয়া যায় না) তবে পুরো বাংলাদেশের মানুষ কিছুটা স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলতে পরে।কারণ এই ভূমিকম্পের মাধ্যমে ডাউকি ফল্টে ১৮৯৭ সালের পর থেকে জমা হওয়া শক্তির কিছু অংশ আজ ক্ষয় হয়ে গেল। হিমালয় অঞ্চলের ভূমিকম্প সম্বন্ধে বিশ্বের সবচেয়ে নামকরা ভূমিকম্প বিশেষজ্ঞ রজার বিলহ্যাম এর মতে সিলেটের পাশে মেঘালয়ের ডাউকি ফল্টে ৮ মাত্রার অধিক ভূমিকম্প হওয়াটা শুধু সময়ের ব্যাপার। বিশ্ববিখ্যাত নেচার বৈজ্ঞানিক প্রবন্ধে প্রকাশিত গবেষণা প্রবন্ধে উল্লেখ করেছেন যদি একটি মাত্র বড় ভূমিকম্পের মাধ্যমে জমা হওয়া সকল সঞ্চিত শক্তি ছেড়ে দেয় তবে তার ফলাফল হবে অকল্পনীয়। আরও নির্দিষ্ট করে বললে বলতে হয় ঢাকা ও সিলেট শহরের অবস্থা হবে জাপানের হিরোশিমা ও নাগাসাকিতে পারমানবিক বোমার পরে যে ধ্বংশযোগ সাধিত হয়েছিল সেই একই মানের। কিন্তু যদি ছোট-ছোট ভূমিকম্পের মধ্যমে জমা হওয়া শক্তি ক্ষয় হয় তবে তা হবে বাংলাদেশের মানুষের জন্য আশীর্বাদ।
বিপরীত ক্রমে এই ছোট-ছোট ভূমিকম্প যদি পুরো ডাউকি ফল্টকে অস্থিতিশীল করে দেয় তবে সিলেট কিংবা পুরো বাংলাদেশে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ হবে অকল্পনীয়। তাই আগামী ১ সপ্তাহ বিশেষ করে আগামী ২৪ ঘণ্টা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। সবাই প্রার্থনা করুন এই ছোট-ছোট ভূমিকম্পগুলোই যেন শেষ ভূমিকম্প হয় আজ ও এই সপ্তাহে।

কানাডা প্রবাসী লেখকের ফেইসবুক থেকে নেয়া।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত