প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মাসকাওয়াথ আহসান: মদিনা সনদ পৃথিবীর ইতিহাসে প্রথম প্রণীত একটি অসাম্প্রদায়িক সমাজ বিধান

মাসকাওয়াথ আহসান: আল্লার দুনিয়ায় বান্দাকে পৃথিবীর কোনো জায়গায় যেতে বাধা দেওয়ার অধিকার অন্য বান্দার নেই। ট্রাভেল ব্যান বা ভ্রমণ নিষিদ্ধ করার এখতিয়ার কোনো মানুষ বা রাষ্ট্রের থাকতে পারে না। সুতরাং ইসরাইলের কোনো মসজিদে নামাজ পড়ার অধিকার থেকে বঞ্চিত করার নৈতিক অধিকার কোনো রাষ্ট্রের বা কোনো ধর্মীয় সংগঠনের নেই। ব্যক্তির আনুগত্য কেবল তার সৃষ্টিকর্তার প্রতি। আল্লাহ ছাড়া একজন প্রকৃত মুসলমানের অন্য কোনো অভিভাবক নেই; থাকতে পারে না।

ইসরাইলে ভ্রমণ ও কাজ করা গেলে; সেখানকার নাগরিক সমাজের সঙ্গে মেলামেশার মাঝ দিয়ে প্যালেস্টাইন সমস্যার সমাধানও বেরিয়ে আসতে পারে। ঘৃণা নয়; সংঘর্ষ প্রশমিত হয় বন্ধুত্ব দিয়ে। এ ছাড়া মহানবী হযরত মুহম্মদ (সা.) (তাঁর ওপর শান্তি বর্ষিত হোক) প্রণীত ‘মদিনা সনদ’ অনুযায়ী ইসলাম ও ইহুদি ধর্মের মানুষের শান্তিপূর্ণ সহাবস্থানের দিক নির্দেশনা রয়েছে। এই সনদের আলোকে একটি মামলায় মুসলমানদের নেতা হযরত আলী হেরে গিয়েছিলেন একজন ইহুদির কাছে। এতোটাই ন্যায়বিচারের রক্ষাকবচ এই মদিনা সনদে সংরক্ষিত হয়েছে। মদিনা সনদ পৃথিবীর ইতিহাসে প্রথম প্রণীত একটি অসাম্প্রদায়িক সমাজ বিধান।

মুসলমান ও ইহুদিদের জীবনাচারে ও খাদ্যাভাসে এতোটাই মিল আছে যে, মুসলমান মুসাফির বা ভ্রমণকারীদের প্রতি স্পষ্ট নির্দেশনা রয়েছে; কোথাও ভ্রমণে গিয়ে মসজিদ পাওয়া না গেলে ইহুদিদের উপাসনালয় সিনাগগে নামাজ পড়া যাবে; ইহুদিদের বাড়িতে রাতে অবস্থান ও খাদ্য গ্রহণ করা যাবে। ফেসবুক থেকে

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত