শিরোনাম
◈ ‘শিক্ষকদের টার্গেট করে সাম্প্রদায়িক পরিস্থিতি সৃষ্টির অপচেষ্টা চলছে’ ◈ উন্নত যোগাযোগ ব্যবস্থা অর্থনীতিকে বিকশিত করে: প্রধানমন্ত্রী ◈ মগবাজার মোড়ে একটি ভবনে আগুন, নিয়ন্ত্রণে ফায়ার সার্ভিসের ৩ ইউনিট ◈ যুক্তরাজ্যকে এক লাখ রোহিঙ্গা পুনর্বাসনের অনুরোধ জানালো বাংলাদেশ ◈ প্রয়োজনে দেশে বেকার ভাতা চালু হবে, পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী ◈ বিএনপির দায়িত্বহীনতা গণতন্ত্রের পথে অন্তহীন বাধা ◈ পদ্মা সেতুর নাট-বল্টু শুধু হাত দিয়ে খোলা সম্ভব নয়  ◈ পদ্মা সেতুর প্রতিটি পিলারে ক্যামেরা বসছে, যানবাহনের গতি নিয়ন্ত্রণে ‘স্পিড গান’ ব্যবহার হবে ◈ সাত মাস পর দেশে ফিরলেন রওশন এরশাদ ◈ ব্যবসায়ীর সাবেক স্ত্রী’র সঙ্গে পরকীয়ার অভিযোগ, ৪ পুলিশের বিরুদ্ধে মামলা

প্রকাশিত : ২৬ মে, ২০২১, ০৪:২৩ দুপুর
আপডেট : ২৬ মে, ২০২১, ০৪:৩৪ দুপুর

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

[১] বিড়ির ওপর অতিরিক্ত শুল্ক আরোপের প্রস্তাব প্রত্যাহারের দাবি

সমীরণ রায়: [২] বুধবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে বাংলাদেশ বিড়ি শ্রমিক ফেডারেশন আয়োজিত এক মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, আসন্ন ২০২১-২২ অর্থবছরের বাজেটে বিদেশি সিগারেট কোম্পানিসহ দেশীয় কিছু এনজিও বিড়ি শিল্পকে ধ্বংস করতে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডে ষড়যন্ত্রমূলক অতিরিক্ত শুল্ক আরোপের প্রস্তাব করেছে। এই প্রস্তাব প্রত্যাহারের দাবি করছি।

[৩] বক্তারা বলেন, বিড়ি দেশের প্রাচীন শ্রমঘন শিল্প। এ শিল্পে প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর অসহায়, বিধবা, স্বামী পরিত্যক্তা, শারীরিক বিকলঙ্গ, নদী ভাঙ্গন ও চর এলাকার মানুষ কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করে। কিন্তু বিদেশী সিগারেট কোম্পানী ও এদেশীয় কিছু এনজিও বিড়ি শিল্পকে ধ্বংস করতে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত। বিশেষ করে বাজেটের সময় বিড়িতে মাত্রাতিরিক্ত শুল্কারোপের জন্য জাতীয় রাজস্ব বোর্ডকে নানা প্রস্তাব দেওয়া হয়। তারা মুখে ধূমপান বিরোধী কথা বললেও বিদেশী সিগারেটকে রক্ষা করে দেশীয় শিল্পকে ধ্বংস করতে চায়। আগামী ২০২১-২০২২ অর্থবছরের বাজেটেও বিড়ি শিল্পকে ধ্বংস করতে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডে ষড়যন্ত্রমূলক অতিরিক্ত শুল্কারোপের প্রস্তাব দিয়েছেন। আমরা এ ষড়যন্ত্রমূলক প্রস্তাবের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।

[৪] এসময় বক্তারা চলতি বাজেটে বৃদ্ধিকৃত প্রতি প্যাকেটে ৪ টাকা মূল্যস্তর সম্পূর্ণ প্রত্যাহার, বিড়ির উপর অর্পিত ১০ শতাংশ অগ্রিম আয়কর প্রত্যাহার, ব্রিটিশ আমেরিকান টোব্যাকোসহ বিভিন্ন এনজিওর ষড়যন্ত্র বন্ধ ও বিড়িকে কুটির শিল্পের মর্যাদার দাবি জানান।

[৫] তাদের অন্যান্য দাবিগুলো হলো- বিড়ির ওপর অর্পিত ১০ শতাংশ অগ্রিম আয়কর প্রত্যাহার করা; ব্রিটিশ আমেরিকান টোবাকোসহ বিভিন্ন এনজিওর ষড়যন্ত্র বন্ধ করা এবং বিড়ি শিল্পকে কুটির শিল্পের মর্যাদা দিয়ে সুরক্ষা আইন প্রণয়ন ও বাস্তবায়ন করা।

[৬] ফেডারেশনের সভাপতি এমকে বাঙ্গালীর সভাপতিত্বে ও যুগ্ম-সম্পাদক মো: হারিক হোসেনের সঞ্চালনায় মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল গফুর, প্রচার সম্পাদক শামীম ইসলাম, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক মায়া বেগম প্রমুখ।

  • সর্বশেষ