প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ঘুর্ণিঝড় ইয়াস মোবাবিলায় সব ধরণের ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষ

রিয়াজুর রহমান রিয়াজ : সম্ভাব্য ক্ষয়ক্ষতি এড়াতে ইতোমধ্যে কয়েক দফায় সভা করে ব্যাপক প্রস্তুতিমুলক সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে বন্দর কর্তৃপক্ষ। বিভিন্ন সেডে দায়িত্বরত কর্মীদের দায়িত্বও বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে।

বন্দরের জেটিতে কনটেইনার হ্যান্ডলিং শিথিল করা হয়েছে। চট্টগ্রাম বন্দরের আউটার থেকে মাদার ভ্যাসেলকে সরিয়ে গভীর সমুদ্রে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এছাড়া কর্ণফূলী নদীতে বিক্ষিপ্তভাবে থাকা লাইটার জাহাজকে সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে।

চট্টগ্রাম বন্দরের সচিব ওমর ফারুক বলেন, সংকেত বাড়লে জাহাজ থেকে পণ্য ওঠানো-নামানো বন্ধ করে দেওয়া হবে। এখন পণ্য খালাসও শিথিল করে দেওয়া হয়েছে। বন্দরের সব কার্যক্রম চলছে সর্বোচ্চ সতর্কতামূলক প্রস্তুতি নিয়েই।

তিনি বলেন, আমাদের করণীয় প্রস্তুতি যা যা দরকার আমরা সবই করে রেখেছি। আমরা আগাম প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছি। তাই ইয়াস আঘাত হানলেও সেটি মোকাবিলায় আমরা প্রস্তুতি রয়েছি।

বন্দর সূএে জানা গেছে, বন্দরের আউটার থেকে বড় জাহাজকে মহেশখালী-কক্সবাজার গভীর সমুদ্রের দিকে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। এছাড়া কর্ণফুলী থেকে লাইটার জাহাজকে সরিয়ে কালুঘাট-কর্ণফুলী পুরাতন ব্রিজ এলাকায় নিয়ে যাওয়া হচ্ছে।

উল্লেখ্য, আবহাওয়া অধিদপ্তর মঙ্গলবার (২৫ মে) চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দরকে ৩ নম্বর বিপদ সংকেত দেখাতে বলা হচ্ছে।

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত