প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] মুফতি আমির হামজার ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন

মাসুদ আলম : [২] শেরে বাংলানগর থানার সন্ত্রাসবিরোধী আইনে মামলায় আজ মঙ্গলবার তাকে ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিট (সিটিটিসি)। বিকেল ৩টায় সিএমএম আদালতে রিমান্ড শুনানি হবে।

[৩] সোমবার দুপুরে কুষ্টিয়ায় অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করেছে ডিএমপির কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিট (সিটিটিসি)।

[৩] কাউন্টার টেরোরিজম প্রধান অতিরিক্ত কমিশনার আসাদুজ্জামান বলেন, মুফতি আমির হামজার বিরুদ্ধে কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটে তদন্তাধীন একটি মামলা রয়েছে। সেই মামলায় তথ্য-প্রমাণের ভিত্তিতে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। ওয়াজের মাধ্যমে ধর্মের অপব্যাখ্যা ও উগ্রবাদ ছড়ানোর বিষয়ে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।

[৪] সিটিটিসি সূত্রে জানা যায়, কুষ্টিয়া সদর উপজেলার পাটিকাবাড়ী ইউনিয়নের রিয়াজ সর্দারের ছেলে হামজা। তিনি বাংলাদেশ জাতীয় মুফাসীর পরিষদের কেন্দ্রিয় যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক হিসাবে দায়িত্ব পালন করছেন। হামজা ওয়াজ-মাহফিলে ইসলামের নামে বিভ্রান্তিকর তথ্য ছড়াচ্ছে। ইউটিউবে প্রকাশিত তার বেশ কিছু বক্তব্য উগ্রবাদ ছড়াচ্ছে। যা শুনে কোমলমতি কিশোর-তরুণরা জঙ্গিবাদে আকৃষ্ট হচ্ছে। সাম্প্রতিক হেফাজতের নেতাকর্মীদের গ্রেপ্তার অভিযানের কারণে আত্মগোপনে ছিলেন আমির হামজা।

[৫] গত ৫ মে সংসদ ভবন এলাকা থেকে তলোয়ার নিয়ে সংসদ ভবনে হামলার পরিকল্পনার অভিযোগে আল সাকিব ও আলী হাসান উসামাকে গ্রেপ্তার করে সিটিটিসি। এ ঘটনায় শেরেবাংলা নগর থানায় সন্ত্রাসবিরোধী আইনে একটি মামলা দায়ের করা হয়। ওই মামলায় সাকিব, আলী হাসান ও মাওলানা মাহমুদুল হাসান গুনবীকে আসামি করা হয়। সাকিবের মোবাইলে আলী হাসান, মাহমুদুল হাসান গুনবী, আমির হামজা, হারুন ইজহার প্রমুখ ব্যক্তির উগ্রবাদ সংবলিত ভিডিও পাওয়া যায়। যা দেখে সে উগ্রবাদে আসক্ত হয়। এক ইসলামী বক্তার নির্দেশে সাকিব হামলার পরিকল্পনা করেছিল। কয়েকজনের ওয়াজ ও বক্তব্য শুনে জঙ্গিবাদে সম্পৃক্ত হয় সাকিব ।

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত