প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

জুলাই থেকে ২ লাখ টাকার বেশি শুল্ক-কর ই-পেমেন্টে

ডেস্ক রিপোর্ট: আগামী ১ জুলাই থেকে দেশের আমদানি ও রপ্তানি পণ্যের কোনো চালানের শুল্ক-কর দুই লাখ টাকার বেশি হলে তা ই-পেমেন্টের মাধ্যমে পরিশোধ বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। সূত্র: বিডি নিউজ

এর ঠিক ছয় মাস পর অর্থাৎ আগামী ২০২২ সালের ১ জানুয়ারি থেকে আমদানি ও রপ্তানির যে কোনো পরিমাণ শুল্ক-কর প্রদানে ই-পেমেন্ট বাধ্যতামূলক করা হয়েছে বলে জানিয়েছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)।

সোমবার জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের জনসংযোগ বিভাগ এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানিয়েছে।

রাজস্ব বোর্ডের সংশ্লিষ্ট একজন কর্মকর্তা জানান, গত এপ্রিল মাস থেকে কমলাপুর আইসিডিতে পরীক্ষামূলকভাবে ই-পেমেন্ট চালু করা হয়েছে।

জানতে চাইলে এনবিআর এর জ্যেষ্ঠ তথ্য কর্মকর্তা (পরিচালক) এম এ মু‘মেন বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “ই-পেমেন্টের সিদ্ধান্ত অনেক আগের। তবে সম্প্রতি রাজস্ব বোর্ডের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের বৈঠকে আগামী ১ জুলাই থেকে দুই লাখ টাকার বেশি এবং ২০২২ সালের ১ জানুয়ারি থেকে যে কোনো অংকের শুল্ক-কর ই-পেমেন্টে পরিশোধ করা বাধ্যতামূলক করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

ই-পেমেন্টে যাওয়ার জন্য অনেক আগে থেকেই এনবিআর প্রস্তুতি শুরু করেছে বলে তিনি জানান।

বর্তমানে প্রচলিত পদ্ধতিতে শুল্ক কর্মকর্তারা আমদানি-রপ্তানি পণ্যের চালানের শুল্ক নির্ধারণ করেন। এরপর তা ব্যাংকে গিয়ে চালানের মাধ্যমে টাকা জমা দেন আমদানিকারক।

সেই টাকা সরকারি কোষাগারে ঠিকমতো জমা পড়েছে কিনা, তা নিশ্চিত হওয়ার পরই শুল্ক কর্মকর্তারা পণ্য খালাসের অনুমতি দেন।

ই-পেমেন্ট পদ্ধতিতে আমদানি বা রপ্তানিকারকের পণ্যের চালানের শুল্কায়ন স্বয়ংক্রিয় পদ্ধতিতে করবেন শুল্ক কর্মকর্তারা। এরপর ই-পেমেন্টের মাধ্যমে কর-শুল্ক পরিশোধ করলেই সংশ্লিষ্টরা তাৎক্ষণিকভাবে পণ্য খালাসের অনুমতি পেয়ে যাবেন।

এতে ব্যবসায়ীদের নানা রকম হয়রানি কমে যাবে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

এনবিআর ২০১৭ সালে ই-পেমেন্ট ব্যবস্থা চালু করে। কিন্তু সব ধরনের প্রস্তুতি নিতে না পারায় তা এতদিন বাধ্যতামূলক করা যায়নি। এখন সব প্রস্তুতি নিয়ে এটি বাধ্যতামূলক করা হলো।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত