প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য ও ফ্রান্সসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ফিলিস্তিনিদের সঙ্গে একাত্মতা জানিয়ে বিক্ষোভ

লিহান লিমা: [২] নিউইয়র্ক, লন্ডন, মেলবোর্ন ও প্যারিসসহ বিশ্বের বড় বড় শহরে ফিলিস্তিনিদের সঙ্গে একাত্মতা জানিয়ে সপ্তাহব্যাপী বিক্ষোভ করছেন শত শত মানুষ। তারা নিজ নিজ দেশের সরকারকে ইসরায়েলের ওপর নিষেধাজ্ঞারোপ ও দেশটিকে অস্ত্র সরবরাহ বন্ধের দাবী জানান। আল জাজিরা

[৩]গত ১১ দিনে গাজায় ইসরায়েলের রকেট ও বিমান হামলায় ৬৫শিশু সহ ২৫০জন ফিলিস্তিনি প্রাণ হারান। শতশত ভবন, বাড়ি-ঘর, স্কুল ও হাসপাতাল ধ্বংস হয়। আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থাগুলো জানায়, দুই সপ্তাহের সংঘর্ষে গাজায় যে পরিমাণ ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে তা কাটিয়ে উঠতে কয়েক বছর লেগে যেতে পারে।

[৪] ফ্রান্সের প্যারিস, কানাডার মন্ট্রিল, টরোন্টো, জার্মানির বার্লিন ও ফ্রাঙ্কফুট, বসনিয়া ও ইয়েমেনে ফিলিস্তিনের স্বাধীনতা ও মুক্তির দাবীতে বিক্ষোভ করেছেন হাজারো বিক্ষোভকারী।

[৫]লন্ডনের বিক্ষোভকারীরা বলেন, ‘ইসরায়েল হামলা বন্ধ করায় কিছুটা স্বস্তি এসেছে কিন্তু ইসরায়েল-ফিলিস্তিন দ্বন্দ্ব নিরসনে আরো বেশি কিছু করা প্রয়োজন।’ তারা ফিলিস্তিনের পতাকা হাতে বিক্ষোভ করেন ও ‘ফিলিস্তিন মুক্ত করো’, ‘গাজায় বোমা হামলা বন্ধ করো’, ‘ইসরায়েলের ওপর নিষেধাজ্ঞারোপ করো’ ব্যানার হাতে স্লোগান দেন।

[৬]অস্ট্রেলিয়ার এডেলএইডে শতশত বিক্ষোভকারী পার্লামেন্ট হাউসের সামনে বিক্ষোভ করেন। অস্ট্রেলিয়ান-ফিলিস্তিনি কমিউনিটির সদস্য জানা ফানদি বলেন, ‘আমাদের এটি মনে রাখা প্রয়োজন যুদ্ধবিরতি মানেই সবকিছুর সমাপ্তি হয়ে যায় নি। ফিলিস্তিনকে স্বাধীন করা না পর্যন্ত এর সমাপ্তি হবে না।’ সিডনির হাইড পার্কে হাজারো বিক্ষোভকারী ফিলিস্তিনের পতাকা হাতে বিক্ষোভ ও স্লোগান দেন। ফিলিস্তিনি অ্যাকশন গ্রুপের অধিকারকর্মী ডালিয়া আল হাজ কাসেম বলেন, ফিলিস্তিনিরা দখলদার ইসরায়েলি সৈন্যদের উপর্যুপরি সহিংসতার শিকার হচ্ছে, এই দখলদারিত্ব বন্ধ না হওয়া পর্যন্ত এই সহিংসতার সমাপ্তি হবে না।’

[৭] নিউইয়র্কে লাল-সবুজ রঙে ফিলিস্তিনের পতাকা হাতে বিক্ষোভ করেন শত শত মানুষ। বিক্ষোভকারীদের মধ্যে ছিলেন অর্থোডক্স ইহুদিরাও। নিউইয়র্ক, হিউস্টন, ফিলাডেলফিয়া, শিকাগো ও পোর্টল্যান্ডে সপ্তাহব্যাপী প্রায় ৯০টিরও বেশি ইভেন্টের পরিকল্পনা করা হয়েছে। ৩৩ বছরের ডানা বারাকি বলেন, ‘আমি আমার বাবা-মা, দাদা-দাদীর জন্য বিক্ষোভ করছি, যারা স্বাধীনতার জন্য ও নিজ ভূমিতে ফেরার লড়াই অব্যাহত রেখেছেন।’ কুইন্সে বিক্ষোভ করা নিউইয়র্কের মানবাধিকার বিষয়ক আইনজীবী পাম স্পি বলেন, ‘ফিলিস্তিনের মানবাধিকার পরিস্থিতি অসহ্যনীয়।’ নর্থ ক্যারোলিনায় শত শত বিক্ষোভকারী ইসরায়েলকে সামরিক সহায়তা দেয়া বন্ধ করতে মার্কিন সরকারকে আহ্বান জানান। টেক্সাসে ৩ থেকে ৪ হাজার বিক্ষোভকারী ইসরায়েলের দখলদারিত্বের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানান।

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত