প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বিধবা হয়ে ৯০ বিলিয়ন ডলারের ব্যাংকিং সাম্রাজ্যের মালিক ভিকি সাফরা

রাশিদ রিয়াজ : ভিকি সাফরা ও তার ছেলেমেয়ে এখন সুইজারল্যান্ডের জে. সাফরা সারাসিন ও ব্রাজিলের বানকো সাফরা ব্যাংকের মালিক। ১৭ বছর বয়সে ভিকি বিয়ে করেন এবং তার স্বামী জোসেফ সাফরা বিশে^র ধনাঢ্য ব্যাংকার হয়ে ওঠেন। পাঁচ দশক পর ভিকি এখন সাফরা ফরচুনের মালিক যা তিন প্রজন্মে চারটি মহাদেশ জুড়ে ১৮০ বছরেরও বেশি সময় ধরে গড়ে উঠেছে। এবং ভিকি এভাবেই বিশে^র অন্যতম ধনী নারী হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেছেন। ব্লুমবার্গ

গত ডিসেম্বরে জোসেফ সাফরা মারা যান। এরপর তার বিশাল ধন সম্পদের নিয়ন্ত্রক হয়ে ওঠেন ৬৮ বছরের ভিকি ও তার চার সন্তান। তারাই এখন সুইজারল্যান্ডের জে সাফরা সারাসিন ও ব্রাজিলের বানকো সাফরা ব্যাংক, রিয়েল এস্টেট ফার্ম, লন্ডনে ঘেরকিন স্কাইস্ক্রাপার ও নিউ ইয়র্কে ৬৬০ মেডিসন এভিনিউতে আরেক সুউচ্চ ভবনের মালিক। ভিকি ও তার সন্তানরা ১৬.২ বিলিয়ন ডলারের সম্পদের অধিকারী বলে জানিয়েছে ব্লুমবার্গ বিলিওনারিস ইনডেস্ক। সাফরা পরিবারে সম্পদের হস্তান্তর ইতিহাসে বড় উদাহরণ তবে তা ধনাঢ্য ব্যক্তিদের মারা যাওয়ার পর পরিবারের সদস্যদের মাঝে সম্পদের ভাগাভাগির নতুন এক টেন্ড হিসেবে বিবেচিত হচ্ছে। এবছরেই ইউরোপের আরো দুই বড় উদ্যোক্তা পিটার কেলনার ও হেইঞ্জ হারম্যানের মৃত্যুর পর তাদের উত্তরসূরীরা ২৫ বিলিয়ন ডলারের সম্পদের মালিক বনে যান। দক্ষিণ কোরিয়ায় সামসাং গ্রুপের চেয়ারম্যান লি কুন-হি’র মৃত্যুর পর তার স্ত্রী হং রা-হি স্বামীর ৭ বিলিয়ন ডলারের বেশি সম্পদের মালিক হয়ে যান। গত জানুয়ারিতে ৮৭ বছর বয়সে ক্যাসিনো ম্যাগনেট শেলডন এ্যাডেলসন মারা যাওয়ার পর তার স্ত্রী মিরিয়াম ৩৪ বিলিয়ন ডলারের সম্পদ হস্তগত করেন।

এতো সবে শুরু। ইউবিএস গ্রুপ এজি এন্ড পিডব্লিউসি বলছে আগামী দুই দশকে ধন্যাঢ্য ব্যক্তিদের মৃত্যুর পর তাদের ২ ট্রিলিয়ন ডলারের সম্পদ উত্তরাধিকারের হাতে চলে যাবে। তবে অতীতে এধরনের অংশীদারিত্ব বা উত্তরাধিকাররা খুব কমই এমনভাবে সম্পদের মালিক হতে পারতেন। এর কারণ হিসেবে ব্রাজিলের কেমব্রিজ ফ্যামিলি এন্টারপ্রাইজ গ্রুপের পার্টনার রবার্তো বেনতো ভিদাল বলেন, ভিকি সাফরার ক্ষেত্রে পারিবারিকভাবে উত্তরাধিকাররা কে কি সম্পদের মালিক হবেন তা খুবই স্বচ্ছভাবে আগেই নির্ধারিত ছিল। অটোমান সাম্রাজ্যের সময় ১৮৪০ সালে উটের ব্যবসা শুরু করে সাফরা পরিবার। পরিবারটি সিরিয়ার আলেপ্পোতে সাফরা ফ্রেরেস এন্ড সাই প্রতিষ্ঠা করে। তারপর ব্যাংকিং ব্যবসা শুরু করে সাফলা পরিবার। আলেপ্পোতেই জন্ম নেন জ্যাকব সাফরা যিনি ব্রাজিলে ১৯৫৩ সালে গিয়ে ধাতব, যন্ত্রাংশ, গবাধি পশু ব্যবসার গোড়াপত্তন করেন এবং পরে ব্যাংক চালু করেন।

জোসেফ সাফরার ছোট ছেলে ব্রিটেনে পড়াশুনা করেন এবং তার পরিবার দক্ষিণ আমেরিকায় চলে যায়। জোসেফের স্বাস্থ্যের অবনতি হলে তার সন্তান ব্রাজিলে চলে যান। সেখানেই তিনি তার ভবিষ্যত স্ত্রীর সঙ্গে পরিচিত হন। ইহুদি পরিবারটি গ্রিস থেকে ব্রাজিলে ১৯৫০ সালে এসে বসতি স্থাপন করে। তাদের বিয়ে হয় ১৯৬৯ সালে। জোসেফ সাফরা সারাসিন তার স্ত্রী ভিকি সম্পর্কে বলেন প্রথম দেখাতেই ওর প্রেমে পড়ি এবং তা জীবনের শেষ মূহুর্ত পর্যন্ত অটুট ছিল। জোসেফের এ স্বীকৃতি মেলে তার কোম্পানির বার্ষিক প্রতিবেদনে। তাদের চার সন্তানের মধ্যে ৪৫ বছরের জ্যাকব সবচেয়ে বড়। আন্তর্জাতিকভাবে পারিবারিক ব্যবসা তিইি পরিচালনা করেন। জোসেফের নাতি নাতনি ১৪ জন। জোসেফের ছোট ছেলে ৩৬ বছরের ডেভিড ব্রাজিলের কোম্পানিগুলো দেখাশুনা করেন। পারকিনসন হওয়ার পর জোসেফ এক দশকের বেশি সময় ধরে সন্তানদের ব্যবসা কিভাবে পরিচালনা করতে হয় তা শিখিয়ে গেছেন। জ্যাকব বলেন তাদের বাবার শিক্ষা পারিবারিক কোম্পানিটি আরো ১৮০ বছর গ্রাহকদের চাহিদা পূরণ করতে সহায়তা করবে। ডিজিটাল ব্যাংকিংএ অসাধারণ সফলতা পেয়েছে পরিবারটি। তবে ভিকি তার স্বামীর মতই খুব কমই মিডিয়াকে সাক্ষাতকার দেন। জনসমক্ষে আসেন দাতব্য কাজে যোগ দিতে যা পরিচালিত হয় ভিকি এন্ড জোসেফ সাফরা ফাউন্ডেশনের নামে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত