প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ক্রিপ্টোকারেন্সির বাজারে লোকসান ১.৪ ট্রিলিয়ন ডলার

রাশিদ রিয়াজ : এপ্রিলে ডিজিটাল মুদ্রা ক্রিপ্টোকারেন্সির মূল্যস্ফীতির পর বাজার মূলধন হারিয়েছে প্রায় দেড় লাখ কোটি ডলারের বেশি। গত মাসেও ক্রিপ্টোকারেন্সি বিটকয়েনের মূল্যস্ফীতি বজায় ছিল কিন্তু এরই মধ্যে বিটকয়েন এক তৃতীয়াংশ বাজার মূল্য হারিয়েছে। সর্বশেষ বিটকয়েনের দর কমেছে ৩০ শতাংশের কাছাকাছি যা আর্থিক মূল্যে ১২ হাজার ডলার। এরপর বিটকয়েনের লেনদেন হয় মাত্র ৩০ হাজার ডলারে। ক্রিপ্টোকারেন্সির দ্বিতীয় মূল্যবান ডিজিটাল মুদ্রা এথারের মূল্য হ্রাস পায় ৪০ শতাংশ। আর ডগিকয়েনের মূল্য হ্রাস পেয়েছে ৫০ শতাংশ। এপ্রিলে বিটকয়েনের মূল্য বেড়ে দাঁড়িয়েছিল ৬৫ হাজার ডলারে। সে তুলনায় বিটকয়েন ৫০ শতাংশ মূল্য হারিয়েছে। পিপলস ব্যাংক অব চায়না ক্রিপ্টোকারেন্সিতে লেনদেন বন্ধের ঘোষণা দেওয়ার পর ডিজিটাল মুদ্রার দরপতন শুরু হয়। ব্যাংকটির তরফ থেকে বলা হয়েছে ভার্চুয়াল কারেন্সি সত্যিকারের মুদ্রা নয়। বাজারে মুদ্রা হিসেবে এর মাধ্যমে লেনদেন হওয়া উচিত নয়। সম্প্রতি ডিজিটাল মুদ্রার মূল্যস্ফীতিকে অনুমান নির্ভর বলেও মন্তব্য করে ব্যাংকটি। আরটি/কয়েনডেস্ক

চীনে সম্প্রতি ক্রিপ্টোকারেন্সির দরপতন সম্পর্কে হংকংয়ের ল’ফার্ম পিনসেন্ট ম্যাসন্সের অংশীদার পল হ্যাসওয়েল বলেন ক্রিপ্টোকারেন্সি নিয়ন্ত্রণে যথেষ্ট ঘাটতি রয়েছে এবং সাধারণ বিনিয়োগকারী যাতে কোনো কেলেঙ্কারীতে না পড়ে সেদিকে লক্ষ্য রেখে পিপল’স ব্যাংক অব চায়না এর লেনদেন করতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে। এছাড়া এক সপ্তাহ আগে শীর্ষ মার্কিন উদ্যোক্তা ও টেসলা’র সিইও এলন মাস্ক বলেন তার কোম্পানির গাড়ি বিক্রিতে ক্রিপ্টোকারেন্সি গ্রহণ করা হবে না। এরপর বিটকয়েনের মূল্য আরো ১০ শতাংশ হ্রাস পায় যখন বাজারে গুজব রটে যে টেসলা যে দেড় বিলিয়ন ডলার মূল্যের ক্রিপ্টোকারেন্সি ক্রয় করেছে তা বিক্রি করতে পারে। তবে এ গুজব এলন মাস্ক নাকচ করে দেওয়ার পর বিটকয়েনের মূল্য কিছুটা বৃদ্ধি পায়।

ব্লুমবার্গকে ক্রিপ্টো হেজ ফান্ড এআরকেথ্রিসিক্স’এর পরিচালক উলরিক লিক্কি বলেন এই প্রথম এলন মাস্ক ক্রিপ্টোকারেন্সি নিয়ে যে ভুল তথ্য দিয়েছেন তা নয়, এর আগেও তিনি তা করেছেন। ক্রিপ্টোকারেন্সির বাজার লেনদেন বিনিয়োগকারীদের কাছে অত্যন্ত আবেগপ্রবণ হয় এবং এতে বেশ ঝুঁকিও রয়েছে। তবে চীনা ব্যাংকটির সর্বশেষ ক্রিপ্টোকারেন্সিতে লেনদেনের অস্বীকৃতি বিনিয়োগকারীদের জন্যে সতর্ক বার্তা বলেও মনে করছেন বাজার বিশ্লেষকরা। শুধু বিটকয়েন নয় অন্য ক্রিপ্টোকারেন্সি গুলোরদরপতন ঘটেছে ৩৪ শতাংশ, যা আর্থিক মূল্যে প্রায় ২৩’শ ডলার। আর ২৪ ঘন্টায় বিটকয়েনের দরপতন ঘটে ৭০ বিলিয়ন ডলারের। গত ১৩ এপ্রিল বিটকয়েনের মূল্য উঠে যায় ৬৪ হাজার ৮’শ ডলারে। সে তুলনায় ৩৮ শতাংশ দরপতন ঘটেছে বিটকয়েনের। তারপরও এবছরের শুরুর তুলনায় বিটকয়েনের মূল্য এখনো ৩১ শতাংশ বেশি এবং গত এক বছরের তুলনায় তা ৩’শ শতাংশ বেশি আছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত