প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] কুমিল্লার দাউদকান্দিতে বেদে সম্প্রদায়ের মানবেতর জীবনযাপন

এইচএম দিদার: [২] পৌরসভার ৬ নম্বর ওয়ার্ডের দোনার চর বরফকল সংলগ্ন এলাকার গোমতীর বুকেই তাদের বর্তমান ঠিকানা। রোদ-বাদলে, প্রবল ঝড়-তুফানে, টর্নেডো কিংবা ঘূর্ণিঝড়ে এসব বৈরী ক্ষুব্ধ প্রকৃতির কালরাত্রি উপেক্ষা করে এই ছোট ডিঙ্গি নৌকায় তাদের জীবন-যাপন। এই জীবন কতোটা আড়ম্বরহীন? কতোটা স্বাচ্ছন্দ্যবোধহীন? জীবন থেকে শুরু করে মরণ অবধি সব প্রতিকূলতা ছাপিয়ে এই নৌকাই তাদের বেঁচে থাকার ভরসা ও আশ্রয়। পিছিয়ে পরা এই জনগোষ্ঠী বঞ্চিত হচ্ছে শিক্ষার আলো থেকেও।

[৩] তবুও লোকগুলোর মুখের কথা-তারা শান্তিতেই আছে। তবে আরেকটু শান্তির আসায় ২৮ টি বেদে পরিবার চায় মাথা গুজার নির্দিষ্ট আবাসন। তারা দাউদকান্দি পৌরসভার ভোটার হওয়া সত্ত্বেও ৩৫ বছর যাবৎ এই বাউণ্ডুলে যাযাবর জীবন যাপন করছে।

[৪] ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মো. সালাউদ্দিনও এই বেদে পরিবারগুলো পুনর্বাসন এর দাবি জানিয়ে আক্ষেপের সুরে বলেন,এই পরিবারগুলো রোদ বৃষ্টি, ঝড় তুফানে গোমতীর বুকে আজ প্রায় ৩৫ বছর হয় ডিঙ্গি নৌকায় ও ঝুপড়ি ঘরে বসবাস করে আসছে। এদের প্রধান জীবিকা নির্বাহ হলো মাছ শিকার করা। তারা মানবেতরভাবে জীবন-যাপন করছেন।তাদেরকে সরকারি ব্যবস্থায় গৃহ নির্মাণ করে দিলে এই ২৮টি পরিবার অন্ততপক্ষে একটা নিরাপদে থাকার একটা ঠাঁই হতো।

[৪] দাউদকান্দি উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মেজর(অব.) মোহাম্মদ আলী বছর তিনেক আগে সরেজমিনে দেখতে আসেন এই পরিবারগুলোকে। কান পেতে শুনেছেন তাদের জীবনের কালযাপনের কথা। তিনি কথা দিয়েছিলেন -বাস্তুহারা এই বেদে পরিবারগুলোকে পুনর্বাসনের ব্যবস্থা করে দিবেন।

[৫] দাউদকান্দি-চান্দিনা সার্কেল এএসপি মো.জুয়েল রানা তার হাতে গড়া নিজস্ব আর্তমানবিক “নিরাপদ ফাউন্ডেশন ” নামক সংগঠনের পক্ষ থেকে রমজানের শেষের দিকে সবগুলো অসহায় পরিবারগুলোকে শাড়ি,লুঙ্গিসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় খাদ্যসামগ্রী উপহার দিয়ে বেদে পরিবারগুলোর মুখে জোসনা মাখা হাসি ফুটিয়েছিলেন। তিনি বেদে পরিবারগুলোকে আশ্বস্ত করেছেন সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনা করে এই পরিবারগুলোকে পুনর্বাসন ব্যবস্থা করার।

[৬] মানবিক পুলিশ অফিসারের পক্ষ থেকে ঈদে এমন উপহার পেয়ে বেদে পরিবারের এক মধ্যবয়সী নারী কাঞ্চনি বেগম উচ্ছ্বসিত কন্ঠে বলেন,” আমরা নৌকায় থাহি,নৌকায় আমগো জীবন-মরণ,আমগো খবর কেউ নেয় না। ঐ দিন পুলিশের বড় স্যার আইয়া আমগো ঈদের পোশাক, চাল -ডাল হাট বাজারের অনেক কিছু দিয়া গেছে।আমরা বহুত খুশি বাজান। বড় স্যার আমগো কইছে আমগোরে থাহার জন্য ঘর বানাই দিবো। স্যারের জন্য আমরা আল্লাহর কাছে দোয়া করি।আল্লাহ স্যারকে ভালো রাখুন। হুনছি সরকার ঘর দেয়,আমাগো ঘর দেওয়ার দাবি করছি সরকারের কাছে।”

[৭] এ বিষয়ে দাউদকান্দি উপজেলা নির্বাহী অফিসার কামরুল ইসলাম খান এর সাথে কথা হলে তিনি জানান,” বেদে পরিবারগুলোর জন্য আমি উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে কয়েকবার ত্রাণ সহযোগীতা করেছি। এসব পরিবারগুলোর জন্য আমি ইতিবাচক পদক্ষেপ গ্রহণ করতে প্রস্তুত আছি। তারা যদি চায় তাহলে সময়সাপেক্ষে সুযোগ আসলে তাদদেরকে(বেদেদের) পুনর্বাসন করে দেওয়া হবে।”

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত