প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

খান আসাদ: দুর্নীতিগ্রস্ত আমলাদের চিহ্নিত করুন, আইনের আওতায় আনুন

খান আসাদ: ফেসবুকে পাওয়া ফ্যাক্টস, সাংবাদিক রোজিনা ইসলাম ও স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব কাজী জেবুন্নেসা। পার্থক্যটা প্রতিনিধিত্বশীল। ‘অনুসন্ধানী সাংবাদিক রোজিনা ইসলামের কাজের পুরস্কার : ইউনেস্কো পুরস্কার (২০১১), কানাডিয়ান অ্যাওয়ার্ডস ফর এক্সসেলেন্স ইন বাংলাদেশি জার্নালিজম (২০১১), ডয়চে ভেলের দুর্নীতি বিষয়ক আন্তর্জাতিক পুরস্কার, পিআইবি ও দুদকের উদ্যোগে ‘দুর্নীতি প্রতিরোধে গণমাধ্যম পুরস্কার বাংলাদেশ’(২০১৪), এবং টিআইবি-র অনুসন্ধানী সাংবাদিকতা পুরস্কার (২০১৫)৷’

‘কাজী জেবুন্নেছা স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব। জানা যায় কাজী জেবুন্নেছার কানাডায় ৩টি বাড়ি, পূর্ব লন্ডনে ১টি এবং ঢাকায় ৪টি বাড়ি, গাজীপুরে ২১ বিঘা জমি আছে। এছাড়া নামে-বেনামে রয়েছে ৮০ কোটি টাকার এফডিআর। তার স্বামী পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের সচিব, স্বামীর বাড়ি নরসিংদী। দুই মেয়ে কানাডায় পড়ে।’

কাজী জেবুন্নেছা কি এরকম সম্পদের মালিক? এরকম জেবুন্নেছারা কতোজন? তবে, অনেক দিন ধরেই এরা বাংলাদেশ রাষ্ট্রব্যবস্থার অঘোষিত ‘মালিক ও শাসক’ মনে করা শুরু করেছে। এদের দুর্নীতি, স্পর্ধা ও দাপট এখন আকাশচুম্বী। এদের থামানোর জন্য দেশপ্রেমিক সৎ আমলা ও রাজনীতিবিদদের ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ। দুর্নীতিগ্রস্ত আমলাদের চিহ্নিত করুন, আইনের আওতায় আনুন। একইসাথে, যে ব্যবস্থা এই দুর্নীতি ও নিপীড়নকে পুনরুৎপাদন করে, সেই বৈষম্য ও সহিংস ব্যবস্থা বদলের লক্ষ্যও সামনে আসুক। ফেসবুক থেকে

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত