প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ফাহাম আব্দুস সালাম: খালেদা জিয়া গুরুতর অসুস্থ, দেশে চিকিৎসা সম্ভব নয়

ফাহাম আব্দুস সালাম: খালেদা জিয়া গুরুতর অসুস্থ। তার অনেকগুলো সমস্যা। তার আর্থারাইটিস খুবই খারাপ অবস্থায়। তার যে চিকিৎসা প্রয়োজন সেটা বাংলাদেশে করা আমার কাছে অসম্ভব মনে হয়।

কেন?

তার জন্য প্রয়োজন বায়োলজিকাল মেডিসিন। বাংলাদেশের স্পেশালিস্টরাও বায়োলজিকাল মেডিসিন প্রেসক্রাইব করার জন্য যথেষ্ট জ্ঞান রাখেন না বলে আমার অনুমান। এর যথোপযুক্ত কারণও আছে। প্রথম কারণ হোলো বাংলাদেশে বায়োলজিকাল মেডিসিন খুবই অপ্রতুল কারণ এগুলো প্রোহিবিটেভলি এক্সপেন্সিভ। তাছাড়া ক্লিনিশিয়ানদের জন্য এই মেডিসিনগুলোর কার্যকরিতা বোঝাটাও খুবই কঠিন। পশ্চিমে বিগ ফার্মাতে একটা চাকরি আছে যেটাকে বলে মেডিকাল সায়েন্স লিয়েইজো অফিসার। অনেক অনেক টাকা বেতন। এরা প্রপার সায়েন্টিস্ট এবং এদের কাজ হোলো ক্লিনিশিয়ানদের কাছে গিয়ে একটা ওষুধের কার্যকারিতা ব্যাখ্যা করা (এরা সেলস রেপ না )

বলাই বাহুল্য, বাংলাদেশে এই ধরনের পোজিশান নাই। তাছাড়া আর্থ্রাইটিসের অনেক ওষুধ ন্যারো থেরাপিউটিক ইনডেক্সের ওষুধ। এগুলোর ডোজিং যথাযথ করতে হলে আপনার অনেক লম্বা সময়ের অভিজ্ঞতা প্রয়োজন। এই ধরনের স্পেশালিস্ট পশ্চিমেও হাটে-ঘাটে পাওয়া যায় না।

আমি বাংলাদেশের ডাক্তারদের ওপর শ্রদ্ধা রেখেই বলছি – এই ধরনের পেশেন্ট ম্যানেজ করার প্রপার অভিজ্ঞতা না থাকাটাই স্বাভাবিক। আর্থারাইটিস এর চিকিৎসা গত ১৫/২০ বছরে শত শত মাইল এগিয়ে গেছে।

তাছাড়া বাংলাদেশের সমাজে হাই-প্রোফাইল মানুষদের চিকিৎসা করা ডাক্তারদের জন্য অত্যাধিক কঠিন কারণ এর মধ্যে একটা অন্যায্য সামাজিক চাপ আছে। ফলে তারা সেইফ সাইডে থাকার জন্য প্রায়ই ওভার প্রেসক্রাইব করেন।

কিন্তু খালেদা জিয়াকে চিকিৎসার জন্য বিদেশে যেতে দেওয়া হচ্ছে না। আপনারা যারা বয়সে তরুণ – আপনাদের কাছে আমার একটাই অনুরোধ: দয়া করে আমাদের কাছ থেকে কিচ্ছু শিখবেন না। শিখতে চাইলে আপনারা ইতর হয়ে উঠবেন। আপনাদের মনটা ঘৃণা দিয়ে পরিপূর্ণ হবে।

আপনারা জানতেই পারবেন না শিভালরি বলে সভ্যতার খুবই লঙ স্ট্যান্ডিং একটা সিলসিলা আছে। পুরুষদের মধ্যে যদি শিভালরি না থাকে সে খুব দ্রুত কেরানী হয়ে ওঠে। এই জিনিস আপনারা কখনোই আমাদের থেকে শিখতে পারবেন না।

জীবনে যেকোনো মূল্যে জেতার মোটিভেশনাল স্পীচকে এবং দেনেওয়ালাকে লাত্থি মারবেন। বরং আপনারা যেকোনো মূল্যে আমাদের থেকে আলাদা হবেন। এই দেশের জন্য না, নিজের স্যানিটির জন্য আপনারা আমাদের থেকে বিচ্যুত হয়েন, আমাদের ভাষা ও আমাদের মেমোরী থেকে আপনারা বিচ্যুত হয়েন – এমনভাবে বড়ো হবেন – এমনভাবে আপনাদের সন্তানদের বড় করবেন যেন এক মুহূর্তের জন্যেও আমাদের স্মরণ করতে না হয়।

সভ্যতার একটা বোঝা আছে – সেই বোঝা নেয়ার চওড়া কাঁধ আপনাদেরই হোক। ফেসবুক থেকে, ঈষৎ সম্পাদিত

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত