প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] ফেরি চলাচলের অনুমতি দেওয়ায় বেড়েছে ঘরমুখো মানুষের ভিড়

শরীফ শাওন: [২] ঈদে ঘরমুখী মানুষের দুর্ভোগ বিবেচনায় সকল নৌরুটে ফেরি চলাচলের অনুমতি দিয়েছে নৌ-পরিবহন মন্ত্রণালয়। ভোর থেকেই পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া ও শিমুলিয়া-বাংলাবাজার ঘাটে যাত্রীরা জড়ো হন, দুপুর থেকেই চাপ বাড়তে থাকে।

[৩] মঙ্গলবার সকাল থেকেই দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া ঘাটের সকল ফেরি (১৬টি) এবং শিমুলিয়া-বাংলাবাজার রুটে চলছে ১৪টি ফেরি চলাচল করায় স্বস্তিতে গন্তব্যে ফিরছেন যাত্রীরা। বিআইডব্লিউটিসি আরিচা কার্যালয়ের মহাব্যবস্থাপক মো. জিল্লুর রহমান বলেন, অতিজরুরি গাড়ি অগ্রাধিকার ভিত্তিতে পার করছি। ফেরি যেন খালি না যায়, এ জন্য সঙ্গে কিছু ব্যক্তিগত গাড়ি ও অন্যান্য গাড়ি পার হতে পারবে।

[৪] সোমবার ভোর ৬টা থেকে মঙ্গলবার ভোর ৬টা পর্যন্ত বঙ্গবন্ধু সেতু দিয়ে দিয়ে মোট ৪১ হাজার ৬২৫ টি যানবাহন পারাপার হয়। স্বাভাবিক সময়ে ১১-১২ হাজার যানবাহন চলাচল করে। বর্তমানে প্রায় চারগুণ যানবাহন পারাপার হয়েছে। ঢাকা-টাঙ্গাইল-বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়কের বিভিন্ন পয়েন্টে যাত্রীরা গাড়ির জন্য অপেক্ষা করছেন। দীর্ঘ সময়েও গাড়ি না পেয়ে অনেকে হেঁটেই গন্তব্যের উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছেন।

[৫] কুমিল্লার ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে দূরপাল্লার বাস বন্ধ থাকলেও যানবাহনের আধিক্য দেখা যায়। ভোর থেকে কুমিল্লার দাউদকান্দির শহীদনগর থেকে পুটিয়া পর্যন্ত ১০ কিলোমিটার সড়কে যানবাহনের ধীরগতির সঙ্গে খণ্ড খণ্ড যানজট থাকলেও কোথাও দীর্ঘ যানজট দেখা যায়নি।

[৬] দাউদকান্দি হাইওয়ে থানার ওসি জহরুল ইসলাম বলেন, দূরপাল্লার কোনও বাস যাতায়াত করতে দেওয়া হচ্ছে না। তবে পণ্য পরিবহনের গাড়িতে করে বাড়ি ফিরছেন ঘরমুখী মানুষ।

 

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত