শিরোনাম
◈ পদ্মা সেতুর ওপর মূত্রত্যাগকারীকে খুঁজছে সিআইডি ◈ ‘শিক্ষকদের টার্গেট করে সাম্প্রদায়িক পরিস্থিতি সৃষ্টির অপচেষ্টা চলছে’ ◈ উন্নত যোগাযোগ ব্যবস্থা অর্থনীতিকে বিকশিত করে: প্রধানমন্ত্রী ◈ মগবাজার মোড়ে একটি ভবনে আগুন, নিয়ন্ত্রণে ফায়ার সার্ভিসের ৩ ইউনিট ◈ যুক্তরাজ্যকে এক লাখ রোহিঙ্গা পুনর্বাসনের অনুরোধ জানালো বাংলাদেশ ◈ প্রয়োজনে দেশে বেকার ভাতা চালু হবে, পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী ◈ বিএনপির দায়িত্বহীনতা গণতন্ত্রের পথে অন্তহীন বাধা ◈ পদ্মা সেতুর নাট-বল্টু শুধু হাত দিয়ে খোলা সম্ভব নয়  ◈ পদ্মা সেতুর প্রতিটি পিলারে ক্যামেরা বসছে, যানবাহনের গতি নিয়ন্ত্রণে ‘স্পিড গান’ ব্যবহার হবে ◈ সাত মাস পর দেশে ফিরলেন রওশন এরশাদ

প্রকাশিত : ১০ মে, ২০২১, ০২:৪৬ দুপুর
আপডেট : ১০ মে, ২০২১, ০২:৪৬ দুপুর

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

[১] চট্টগ্রামে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে ৫ জন গ্রেপ্তার

রাজু চৌধুরী : [২] নগরীর বাকলিয়া থানাধীন শাহ আমানত সংযোগ সড়কস্থ জিরাত ফ্যাশন গার্মেন্টসের পশ্চিম পাশে মাষ্টার কলোনীর মুখে শাহ আমানত ফার্নিচার দোকানের বিপরীতে খালি জায়গায় অন্ধকার স্থানে একত্রিত হয়ে ডাকাতির উদ্দেশ্যে প্রস্তুতি গ্রহণকালে তাদের গ্রেপ্তার করে বাকলিয়া থানা পুলিশ।

[৩] জানা যায়, রবিবার ৯ মে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সিএমপির সহকারী পুলিশ কমিশনার (চকবাজার জোন) মুহাম্মদ রাইসুল ইসলাম এর সার্বিক তত্ত্বাবধানে বাকলিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মুহাম্মদ রুহুল আমীনের নেতৃত্বে পুলিশ উক্ত স্থানে পৌঁছালে, ডাকাত দল পালানোর সময় ০১টি চাপাতি, ০২টি ছোরা, ০১টি প্লাস, ০৩টি লোহার রড, ০১টি লোহার কোরাবারী সহ ডাকাত দলের সদস্য মোঃ আল আমিন(২৪), মোঃ রুবেল(২৩), মোঃ কবির হোসেন (২৫), শশি প্রকাশ বাদশা(২১) ও মোঃ শরিফ প্রকাশ কালাইয়া(২৪) কে গ্রেপ্তার করেন।

[৪] এসি (চকবাজার) মোহাম্মদ রাইসুল ইসলাম জানান, প্রতিবছর ঈদ আসলেই বেপারোয়া হয়ে ওঠে ছিনতাইকারী ও ডাকাত দল। সাধারণ মানুষের জানমাল রক্ষায় আইনশৃঙ্খলাবাহিনীও সতর্ক থাকে, তারই ধারাবাহিকতায় অপরাধ দমনে বিভিন্ন অভিযান পরিচালনা করা হয়। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে এ ডাকাতদের গ্রেপ্তার করা হয়।

[৫] এ ব্যাপারে, বাকলিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ রুহুল আমীন বলেন, জিজ্ঞাবাসাদে তারা জানান, লকডাউন থাকায় শহরের অনেকেই ঈদের অনেক আগেই শহর ছেড়ে গ্রামের বাড়ী চলে যাচ্ছে। আর এই সুযোগটা কাজে লাগানোর জন্য ২-৩ দিন যাবৎ তারা বিভিন্ন এলাকায় ঘুরে টার্গেট ঠিক করে ডাকাতি করার পরিকল্পনা করছিল।

[৬] তারা আরও তথ্য দেয় যে, যে সব বাসার লাইট ২-৩ দিন যাবৎ অফ সেই বাসায় কেউ নেই ধরে নিয়েই টার্গেট করে। পাশাপাশি যে সকল বাসার বাহির থেকে তালাবদ্ধ সে সকল বাসায় ওরা টার্গেট করে। পূর্ব থেকে টার্গেটকৃত বাসা গুলোতে ডাকাতি করা উদ্দেশ্যেই অস্ত্র-সস্ত্র এবং ঘর ভাঙ্গার সরঞ্জাম নিয়ে তারা এক জায়গায় জড়ো হয়েছে বলে স্বীকার করে।

[৭] গ্রেপ্তারকৃত ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে বাকলিয়া থানায় নিয়মিত মামলা রুজু করা হয়েছে বলেও জানান ওসি রুহুল আমীন।

  • সর্বশেষ