প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] ইউনিয়ন পর্যায়ে মানুষের মাথা গোঁজার ঠাঁই নিশ্চিতে কাজ করছে সরকার : পূর্বাচলে ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে প্লট বরাদ্দ অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী

মহসীন কবির: [২] রোববার (৯ মে) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে রাজধানীর পূর্বাচলে নতুন শহর প্রকল্পে ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে প্লট বরাদ্দ অনুষ্ঠানে ভার্চুয়ালে গণভবন থেকে যোগ দিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একথা বলেন। ডিবিসি টিভি

[৩] সম্পদশালীদের প্রতি প্রশ্ন রেখে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘যাদের এত বিশাল বিশাল অট্টালিকা, বাড়িঘর ফ্ল্যাট সবই আছে তাদের আরও লাগবে কেন? মরলে তো সবাইকে সেই কবরেই যেতে হবে। মাত্র তিন হাত, সাড়ে তিন হাত জায়গায়।’ তিনি বলেন, এই ধন সম্পদ কেউ সঙ্গে নিয়ে যেতে পারবে না। এই কথাটা মানুষ কেন ভুলে যায় আমি জানি না।

[৪] প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, যখন পূর্বাচল শুরু হলো তখন আমি দেখেছি…এমনকি গুলশান, বারিধারায় বিশাল বিশাল অট্টালিকাও যাদের তাদেরও পূর্বাচলে একটা প্লট না থাকলে নাকি ইজ্জতই থাকে না। এই রকমও কিছু কিছু মানুষের মানসিকতা আমি দেখেছি।

[৫] পূর্বাচলে যারা প্লট বরাদ্দ পেয়েছেন তাদের উদ্দেশ্যে সরকার প্রধান বলেন, যাদের সত্যিকার প্রাপ্য, আপনারা কিন্তু বঞ্চিত ছিলেন। কাজেই সব সময় আমাদের একটা প্রচেষ্টা ছিল যে কীভাবে আপনাদের বঞ্চনার হাত থেকে মুক্তি দেব। আপনারা জমি দিয়েছেন অথচ আপনারা প্লট পাবেন না এটা হতে পারে না।

[৬] শেখ হাসিনা বলেন, আমি এইটুকু চাই, বাংলাদেশের একটি মানুষও গৃহহীন থাকবে না। যেইটুকু পারি, যেভাবে পারি একটা মানুষকে একটা ঘর, একটা মাথা গোঁজার ঠাঁই সেটা আমরা করে দেব এবং প্রত্যেকটা ঘরেই বিদ্যুৎ থাকবে, আলো জ্বলবে। প্রতিটি পরিবারেই শিক্ষিত মানুষ থাকবে, লেখাপড়া শিখবে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত