শিরোনাম
◈ রাজধানীতে ব্রিটিশ নাগরিকদের চলাচলে সতর্কতা জারি ◈ গরিবের জন্য ইনসুলিন নিশ্চিত করতে সম্মিলিত প্রচেষ্টার ওপর গুরুত্বারোপ প্রধানমন্ত্রীর ◈ বিএনপি কিছু রাজনীতি শিখেছে আমাদের সাথে যৌথ আন্দোলন করে: প্রধানমন্ত্রী ◈ ব্যারিস্টার খোকনসহ ৩৪ জনের নামে গ্রেফতারি পরোয়ানা ◈ করোনার সময় ছাত্রলীগ নিঃস্বার্থভাবে কাজ করেছে : জয় ◈ আমাদের শক্তি জনগণ, পেটুয়া বাহিনী লাগে না: প্রধানমন্ত্রী ◈ কাল থেকে সারাদেশে সতর্ক পাহাড়ায় থাকবে আওয়ামী লীগ: কাদের ◈ ছাত্রলীগের সম্মেলন উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী ◈ নারায়ণগঞ্জে জাপানিজ অর্থনৈতিক অঞ্চল উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী ◈ গাইবান্ধা-৫ আসনের উপ-নির্বাচনে ভোট গ্রহণ ৪ জানুয়ারি

প্রকাশিত : ০৮ মে, ২০২১, ১১:২৫ দুপুর
আপডেট : ০৮ মে, ২০২১, ০২:০৭ দুপুর

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

[১] দূরপাল্লার গণপরিবহন বন্ধ রেখে করোনা রোধ করা যাবে না: শাজাহান খান

মহসীন কবির ও মিনহাজুল আবেদীন:[২] দুরপাল্লার গণপরিবহন চালুর দাবিতে শনিবার (৮ মে) জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে সকালে সংবাদ সম্মেলনে শাজাহান খান একথা বলেন। তিনি অবিলম্বে আন্ত:জেলা বাস চালুর দাবি জানান। ডিবিসি ও সময় টিভি

[৩] স্বাস্থ্যবিধি মেনে দূরপাল্লার যাত্রী এবং পণ্যবাহী পরিবহন চালুর দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতি, বাংলাদেশ বাস-ট্রাক ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন ও বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশন।

[৪] শ্রমিক ও মালিকরা দুরপাল্লার গণপরিবহন চালুসহ সরকারের কাছে ৫ দফা দাবি জানান। দাবি মানা না হলে ঈদের দিন শ্রমিকরা বিক্ষোভ করবে বলে সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়।

[৫] সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি শাজাহান খান। তিনি বলেন, ‘গত ৬ মে থেকে লকডাউন শিথিল রেখে মহানগর ও জেলার অভ্যন্তরে গণপরিবহন পরিচালনার সিদ্ধান্ত দিয়েছে সরকার। কিন্তু দূরপাল্লার গণপরিবহন বন্ধ রয়েছে। এতে মালিক ও শ্রমিকদের মধ্যে অসন্তোষ দেখা দিয়েছে।

[৬] শাহাজান খান বলেন, পরিবহন মালিকদের গাড়ির ঋণের সুদ বাড়ছে, সরকারের ট্রাক্স ভ্যাট দিতে হচ্ছে। সুদের পরিমাণ বৃদ্ধি পাওয়ায় লিজিং কোম্পানি গাড়ি বাজেয়াপ্ত করছে।  করোনাকালে ১ম ধাপে শ্রমজীবী ও কর্মজীবী মানুষের জন্য ৫০ লাখ টাকা দেয়ার কথা ছিলো। তা ৭০ লাখ মানুষের মধ্যে বিতরণ করা হয়েছে। দ্বিতীয় ধাপে আড়াই হাজার টাকা করে দেয়া হচ্ছে। কিন্তু প্রথম ধাপে যাদের দেয়া হয়েছে, শুধুমাত্র তারাই পাচ্ছেন। অন্য শ্রমিকরা কেউ পায়নি।

[৭] তিনি বলেন, প্রায় ৪০ লাখ শ্রমিকদের বেতন ভাতা পরিশোধ করার জন্য গার্মেন্টস মালিকদের ২ শতাংশ সুদে প্রথমে ৫ হাজার কোটি ও পরে আড়াই হাজার কোটি টাকা প্রণোদনা দেয়া হয়েছে। বড় শিল্পের মালিকরা পেয়েছে ৩০ হাজার কোটি টাকা। মাঝারি শিল্পের মালিকরা পেয়েছে ২০ হাজার কোটি টাকা। কুটির শিল্প খাত পেয়েছে পাঁচ হাজার কোটি টাকা। কিন্তু প্রায় তিন লাখ মালিক ও ৬০-৭০ লাখ শ্রমিকরা পেয়েছে খুবই সামান্য।

[৮] তিনি আরও বলেন, পরিবহন খাতে শুরুতে কর্মহীন মানুষের খাদ্য সহায়তা বাবদ আড়াই হাজার কোটি টাকা দেয়া হয়েছিলো। তারমধ্যে বিতরণ হয়েছে ১ হাজার ৬৮ কোটি টাকা। সামাজিক নিরাপত্তার জন্য বরাদ্দ দেয়া হয়েছে ৮শ ১৫ কোটি টাকা। যার মধ্যে বিতরণ হয়েছে ৩০ কোটি টাকা।

 

 

 

 

 

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়