প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] সরকারি ব্যবস্থাপনায় হজে পাঠানোর নামে প্রতারণার দায়ে একজন গ্রেপ্তার

সুজন কৈরী: [২] সরকারি ব্যবস্থাপনায় হজে পাঠানোর প্রলোভন দেখিয়ে সাধারণ মুসল্লিদের কাছ থেকে টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগে এক প্রতারককে গ্রেপ্তার করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) ডিবি সাইবার এন্ড স্পেশাল ক্রাইম বিভাগ। গ্রেপ্তারকৃতের নাম- নজরুল ইসলাম (৫৮)। তার কাছ থেকে ২টি মোবাইল ফোনসেট, ৩টি সীম কার্ড ও নগদ ৫ হাজার ৫০০ টাকা উদ্ধার করা হয়েছে।

[৩] মঙ্গলবার খুলনা মেট্রোপলিটন এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করেছে ডিবি অর্গানাইজ ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন টিম।

[৪] পুলিশ বলছে, সরকারি ব্যবস্থাপনায় হজ নিবন্ধনের কথা বলে প্রতারণা করে আসছিল একটি চক্র। হজ মৌসুমে বিভিন্ন আলেম বিশেষ করে মসজিদের ইমাম ও ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের সরকারিভাবে হজে যাওয়ার জন্য নিবন্ধিত হয়েছেন বলে ফোন করতো চক্রটি। নিবন্ধনের কাজ দ্রুত করতে সাড়ে সাত হাজার টাকা পাঠানোর জন্য একটি বিকাশ বা নগদ নম্বর পাঠানো হতো তাদের কাছ থেকে। ওই নম্বর টাকা না পাঠালে নিবন্ধন বাতিল হবে বলে জানাতো চক্রটি।

[৫] বুধবার দুপুরে ডিবি কার্যালয়ে অনানুষ্ঠানিক এক বিফ্রিংয়ে সাংবাদিকদের ডিবির অতিরিক্ত কমিশনার এ কে এম হাফিজ আক্তার বলেন, হজ মৌসুমকে কেন্দ্র করে একটি প্রতারক চক্র বিভিন্ন মাওলানা বিশেষ করে মসজিদের ইমাম ও ধর্মপ্রান মুসলমানদের সরকারীভাবে হজের জন্য নিবন্ধিত হয়েছেন বলে ফোন করেন। সরকারি ব্যবস্থাপনায় হজ পালনে নিবন্ধনের কাজ দ্রুত করতে ৭ হাজার ৫০০ টাকা পাঠানোর জন্য একটি বিকাশ বা নগদ নাম্বার পাঠান। টাকা না পাঠালে নিবন্ধন বাতিল হবে বলে জাননো হয়।

[৬] পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, গত ২৬ এপ্রিল মফিজুল ইসলাম নামের এক ব্যক্তিকে ফোন দিয়ে প্রতারক চক্রের সদস্য নোয়াখালী ১ আসনে সংসদ সদস্যের এপিএস পরিচয় দিয়ে বলে, সরকারি ব্যবস্থাপনায় হজ করার ব্যবস্থা করে দেবে। নিবন্ধন বাবদ সাড়ে ৭ হাজার টাকা লাগবে। অন্যথায় হজ করা হবে না। এ বিষয়ে চাটখিল থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করা হয়।

[৭] তিনি বলেন, একই ধরনের ঘটনা দেশের বিভিন্ন প্রান্তে ঘটতে থাকলে ভুক্তভোগীরা ধর্ম মন্ত্রণালয়ের কল সেন্টারে ফোন দিয়ে জানান। এর প্রেক্ষিতে ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রশাসনিক কর্মকর্তা মুহা. ইয়াকুব আলী জুলমাতি বাদী হয়ে শাহবাগ থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করেন। প্রাথমিক তদন্তে চক্রটি দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন কৌশলে সাধারণ মানুষকে প্রতারিত করে টাকা হাতিয়ে নেওয়ার প্রমাণ পাওয়া যায়। এ প্রতারণার কাজে তারা ভুয়া নিবন্ধিত ২০-২৫টি সিম ব্যবহার করতো যাতে তাদের শনাক্ত করা সম্ভব না হয়।

[৮] চলতি বছর যারা হজে যাবেন সরকারিভাবে নিবন্ধিত হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত হওয়ার জন্য অবশ্যই ধর্ম মন্ত্রণালয় পরিচালিত ‘হজ কল সেন্টারে’ (নম্বর-০৯৬০২৬৬৬৭০৭) ফোন করে তথ্য জানার অনুরোধ করেন এই গোয়েন্দা কর্মকর্তা।

[৯] ডিবি অর্গানাইজ ক্রাইম ইনভেস্টেগেশন টিমের সহকারী পুলিশ কমিশনার মো. নাজমুল হক জানান, প্রতারকরা ধর্ম মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা ও সংসদ সদস্যদের ব্যক্তিগত সহকারী পরিচয় দিয়ে হজ গমনেচ্ছুকদের ফোন করেন। সরকারি ব্যবস্থাপনায় হজে পাঠানোর প্রলোভন দেখিয়ে হজ গমনেচ্ছুদের ফোন করে বিকাশ ও নগদের মাধ্যমে টাকা হাতিয়ে নিচ্ছিলেন একজন প্রতারক। অভিযোগ পাওয়ার অভিযান চালিয়ে প্রতারক নজরুলকে গ্রেপ্তার করা হয়। পরে তাকে শাহবাগ থানায় দায়ের হওয়া মামলায় ৭দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে পাঠানো হয়। শুনানি শেষে আদালত ২দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত