প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] ‘ভারতে জীবনের ঝুঁকি ছিল, এই অবস্থায় ভারত ফিরতে চাই না’, বললেন সেরাম সিইও

রাশিদুল ইসলাম : [২] টাইমস’এর কাছে সাক্ষাৎকারে সেরাম সিইও আদর পুনাওয়ালা বলেন, ভারতে বহু প্রভাবশালী মানুষ তাকে ফোন করে দ্রুত ভ্যাকসিন পাঠাতে বলেছিলেন। সোমবার বিকালে তিনি টুইট করে বলেন, আমার মন্তব্যের সম্ভবত ভুল ব্যাখ্যা হয়েছে। আমি কয়েকটা ব্যাপারে পরিষ্কার জানাতে চাই। টাইমস অব ইন্ডিয়া

[৩] পুনাওয়ালা বলেন, ভ্যাকসিন তৈরি করার প্রক্রিয়া খুব জটিল। ইচ্ছা করলেই তার উৎপাদন বাড়ানো যায় না। ভারতের জনসংখ্যা বিপুল। সবার জন্য যথেষ্ট সংখ্যক ডোজ তৈরি করা সহজ কাজ নয়। সবচেয়ে উন্নত দেশগুলিতেও এখন চাহিদার সঙ্গে তাল মিলিয়ে ভ্যাকসিন তৈরি করা যাচ্ছে না।

[৪] টাইমসকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে পুনাওয়ালা বলেন, পরিবারের সকলকে নিয়ে দীর্ঘ সময়ের জন্য তিনি ব্রিটেনে এসেছেন। ব্রিটেন সদ্য ভারতকে ‘রেড লিস্ট’-এর অন্তর্ভুক্ত করেছে। ভারত থেকে কাউকে ব্রিটেনে যেতে দেওয়া হচ্ছে না। এই নিষেধাজ্ঞা আরোপ হওয়ার আগেই পুনাওয়ালা ব্রিটেনে পৌঁছেছেন।

[৫] সেরামের সিইও বলেন, ভারতে তার জীবনের ঝুঁকি ছিল। তাই তিনি ব্রিটেনে চলে এসেছেন। তিনি বলেন, ব্রিটেনে দীর্ঘ সময় থাকব। এই অবস্থায় ভারতে ফিরতে চাই না। সব দায়িত্ব আমার ঘাড়ে পড়ছে। কিন্তু আমার একার পক্ষে কিছু করা সম্ভব নয়।

[৬] পরে পুনাওয়ালা বলেন, তিনি ভারতে নিজের কাজ করার চেষ্টা করেছিলেন। কিন্তু সেখানে কারও চাহিদা মেটাতে না পারলে সে যে কী করবে তা তিনি জানেন না। ভারতে কাজ করার ক্ষেত্রে শুধু ঝুঁকি আছে বললে কম বলা হয়। সেখানে অবস্থা খুব খারাপ। সকলেই চাইছে তাকে ভ্যাকসিন দেওয়া হোক। কেউ তার আগে ভ্যাকসিন পেলে সে রেগে যাচ্ছে।

[৭] পুনাওয়ালার বক্তব্য, ভারতে এখনও বিরাট সংখ্যক মানুষের ভ্যাকসিন নেওয়া বাকি আছে। এদিকে ভ্যাকসিন যথেষ্ট পরিমাণে উৎপন্ন হচ্ছে না। সেখান থেকেই বিপদের ঝুঁকি থেকে যাচ্ছে।

[৮] গত ২৯ এপ্রিল কেন্দ্রীয় সরকার পুনাওয়ালাকে ওয়াই ক্যাটেগরির সিকিউরিটি দেয়। তার সঙ্গে সবসময় দু’জন নিরাপত্তারক্ষী থাকেন। তাছাড়া তার বাড়িতে ২৪ ঘন্টা পাহারা দেন একজন সশস্ত্র নিরাপত্তারক্ষী। এপ্রিলের শুরুতে উৎপাদন বাড়ানোর জন্য পুনাওয়ালার সংস্থাকে ৩ হাজার কোটি টাকা দেয় কেন্দ্রীয় সরকার।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত