প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] গভর্নর জগদীশ ধনখড়ের সঙ্গে দেখা করে সরকার গঠনের অনুমতি চাইলেন মমতা ব্যানার্জি

আসিফুজ্জামান পৃথিল: [২]বুধবার টানা ৩য় বারের মতো পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেবেন তিনি।

[৩] সোমবার বিকেলে নবনির্বাচিত বিধায়কদের সঙ্গে বৈঠকের পর সরকার গঠনের দাবি নিয়ে রাজভবন যান মমতা। এর আগে বিধায়করা তাকে দলনেতা নির্বাচিত করেন। জ্যোতি বসুর পর তিনিই প্রথম রাজনীতিবীদ, যিনি টানা ৩য়বারের মতো রাজ্যটির সরকার প্রধান হিসেবে দায়িত্ব নেবেন।

[৪] মমতাকে প্রায় সব রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীরা ফোন করে শুভেচ্ছা জানালেও, জানাননি ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এই বিষয়ে মমতা বলেন, ‘এই প্রথম দেখলাম কোনও প্রধানমন্ত্রী ফোন করলেন না। আমি অবাক হয়েছি। হয়তো ব্যস্ত ছিলেন। অবশ্য আমি কিছু মনে করিনি। জাতীয় স্বার্থে এবং রাজ্যের স্বার্থে আমাদের যেখানে একসঙ্গে কাজ করার কথা সেখানে সহযোগিতা থাকলেই হলো।’

[৫] ফোন না করলেও অবশ্য মমতা ও তৃণমূলকে টুইটারে শুভেচ্ছা জানিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী। শুভেচ্ছা আরও অনেকেই জানিয়েছেন মমতাকে। কেন্দ্রীয় প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং এবং কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামনও শুভেচ্ছা জানান।

[৬] নির্বাচনের ফলাফলে তৃণমূলের ধারেকাছেও নেই বিজেপি। তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে গিয়েছিলেন যে ওজনদার নেতারা, তাদের মধ্যে শুভেন্দু অধিকারী, হিরণ চট্টোপাধ্যায় ও নিশীথ প্রামাণিককে বাদ দিলে কেউই জয়ী হতে পারেননি। বিজেপির পরাজয়ের পর তাই তাদের তৃণমূলে ফিরে আসা নিয়ে জল্পনা শুরু হয়েছে। সোমবার সকালে কালীঘাটে যখন সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন মমতা, সেখানে তাদের প্রত্যাবর্তনের সম্ভাবনা নিয়ে প্রশ্ন করলে মমতা বলেন, ‘আসুক না। কে বারণ করেছে! এলে স্বাগত।’

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত