প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সুনামগঞ্জের পুরাতন লক্ষণশ্রী গুচ্ছগ্রামে ৮ বছরের শিশুকে ধর্ষণ, হাসপাতালে ভর্তি

জাকারিয়া হোসেন: সুুনামগঞ্জ সদর উপজেলার গৌরারং ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের পুরাতন লক্ষণশ্রী গুচ্ছগ্রামের ১৫নং ঘরের এক দিনমুজুর বিধবা নারীর ৮ বছরের কন্যা শিশুকে ধর্ষন করেছে পাশের ঘরের আলাউর রহমানের বিবাহিত ছেলে লম্পট মো. রিপন মিয়া(২৫)।

ধর্ষণের ঘটনাটিকে ধামাচাপা দিতে মরিয়া হয়ে উঠেন গুচ্ছগ্রাম কমিটির সভাপতি মো. রইছ মিয়া ও কুতুবপুর গ্রামের মো. মাহবুবুর রহমান চৌধুরীসহ ৪/৫জন সালিশ ব্যক্তিরা। তাদের সময় কালক্ষেপনে ধর্ষনের ঘটনার দুইদিন অতিবাহিত হয় বলে জানান ধর্ষিতার স্বজনরা। অথচ ঘটনাটি ঘটেছে গত পহেলা মে শনিবার দুপুরে।

ধর্ষিতার পরিবার সূত্রে জানা যায়,প্রতিদিনের ন্যায় ৪ সন্তানের জননী ধর্ষিতা শিশুটির মা দিনমুজুর পাথর ভাঙ্গার কাজে বাড়ির বাহিরে কাজের সন্ধানে চলে যাওয়ার পর ঐ শিশুটি তার ঘরে একা ঘুমিয়ে ছিল। এই সুযোগ বুঝে ধর্ষণকারী রিপন মিয়া খালিঘরে ঢুকে শিশুটির মুখে চাপা দিয়ে তাকে ধর্ষণ করে। এক পর্যায়ে শিশুটি অধিক রক্তখননে চিৎকার শুরু করলে ধর্ষনকারী পালিয়ে যায়।

আজ সোমবার সকাল ১১টায় বিষয়টি গণমাধ্যমকর্মীদের নজরে আসার পর সরেজমিনে ঘটনাস্থলে গিয়ে নির্যাতিত শিশু ও তার মাকে মেডিকেল চেকআপের জন্য সুনামগঞ্জ জেলা সদর হাসপাতালে পাঠান। সেখানকার কর্তব্যরত মেডিকেল অফিসার ডা. অনুপ তালুকদার শিশুটির প্রাথমিক পরীক্ষা শেষে হাসপাতালের ৪ তলার গাইনি ওয়ার্ডে ভর্তি করানো হয়।

এ ব্যাপারে সালিশ ব্যক্তিত্ব মো. রইছ মিয়ার সাথে কথা হলেএবং ধামাচাপা দেয়ার বিষয়টি জানতে চাইলে তিনি অস্বীকার করেন।
এ ব্যাপারে সুনামগঞ্জ সদর থানার অফিসার ইনচার্জ মো. শহিদুর রহমান জানান ঘটনাটি শুনে তাৎক্ষণিক পুলিশকে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তবে অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত