প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মানুষের জীবন রক্ষায় নিজেদের জীবনকে উৎসর্গ করছেন চিকিৎসকরা

শওকত আলী সাগর: অন্য সময়ের কথা বাদ দেই। গত এক বছরের বেশি সময় ধরে, করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ের সময়টার দিকে তাকান তো! আমাদের চিকিৎসকদের দিকে তাকান। নিজেদের জীবনকে বাজি রেখে আমার আপনার, আমাদের জীবন রক্ষার কি লড়াইটা না তারা করে যাচ্ছেন। নিজের দিকে, পরিবারের দিকে, সন্তানদের দিকে তাকানোর সময় নেই তাদের। মানুষের জীবন রক্ষায় নিজেদের জীবনকে উৎসর্গ করে রেখেছেন যেনো। বিনিময়ে তারা কি কিছু চেয়েছেন! চান নি। আমরা কি তাদের দিয়েছি কিছু!

গত বছর অন্টারিও মেডিকেল এসোসিয়েশন চিকিৎসকদের ধন্যবাদ জানানোর একটা আয়োজন করেছিলো। এবারও সেই আয়োজনটি তারা করছে। কাল ১ মে তারা ’শাইন অ্যা লাইট ফর অল দে ডু’- নামে ব্যতিক্রমী একটি কর্মসূচীর আয়োজন করেছে। এই কর্মসূচীটি হচ্ছে ডাক্তারদের ধন্যবাদ জাাননোর, তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশের কর্মসূচী।

তেমন কিছু করতে হবে না। ঘরের জানালাা খুলে, ব্যালকনিতে দাঁড়িয়ে বা সামনের বারান্দায়, উঠানে এসে, কিংবা যে যেখানে আছেন সেখানেই একটি মোমবাতি জ্বালিয়ে কিছুক্ষণ দাঁড়িয়ে থাকা। মোমবাতি না থাকলে হাতের সেলফোনের ফ্লাশ লাইটটি জ্বালিয়ে উপরের দিকে ধরে রেখে কিছুক্ষণ দাঁড়িয়ে থাকা। এইটুকুই। তারপর সোশ্যাল মিডিয়ায় #DoctorsDay এবং #ShineALightForThem হ্যাশট্যাগ দিয়ে কেন আপনি আলো জ্বালিয়ে দাঁড়িয়েছিলেন তা লিখে নিজের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের একটি পোষ্ট দেয়া
নিজেদের জীবন বাজি রেখে ডাক্তাররা যা করছেন, তার বিনিময়ে এইটুকু ধন্যবাদ জানানো কি খুব বেশি কিছু! মোটে্ও না।

আগামী কাল ১ মে রাত ৯টায় অন্টারিও মেডিকেল এসোসিয়েশনের সাথে, হাজার হাজার অন্টারিয়ানদের সাথে আমি্ও আলো হাতে আমার বাড়ীর সামনের উঠোনে দাঁড়াবো। নিজের জীবনকে বিপন্ন করে মানুষের জীবন বাঁচানোর সংগ্রামে থাকা ডাক্তারদের উদ্দেশ্যে বলবো- থ্যাংক ইউ ডাক্টর, ইউ আর দ্যা সেভিয়র। আপনিও দাঁড়াতে পারেন। আপনার হাতের সেলফোনের ফ্লাশলাইটটি জ্বালিয়ে নিলেই হবে। দাড়াবেন তো!। ফেসবুক থেকে

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত