প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ফেসবুক ইনবক্সে বার্তা পেয়ে দূতাবাস কর্মীর নির্যাতিতা স্ত্রীকে সহযোগিতা করলো পুলিশ

সুজন কৈরী: বাংলাদেশে অবস্থিত ইউরোপিয়ান দেশগুলোর একটি দূতাবাসে কর্মরত একজন তার স্ত্রীকে নির্যাতন ও হয়রানি করছিলেন। স্ত্রীকে তালাক দেওয়ার কথা বলে ঘর থেকে বের করে দেন। উপায়ান্ত না পেয়ে অসহায় ওই নারী বাংলাদেশ পুলিশের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজের ইনবক্সে এ বিষয়ে অভিযোগ করেন। পরে পুলিশের মধ্যস্থতায় নিজের স্ত্রীকে ঘরে তুলে নেন ওই দূতাবাস কর্মকর্তা।

শুক্রবার পুলিশ সদর দপ্তরের এআইজি (মি‌ডিয়া অ্যান্ড পাব‌লিক রি‌লেশন্স) মো. সো‌হেল রানা বলেন, গত ২৬ এপ্রিল সকালে পুলিশের মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেশন্স উইং পরিচালিত বাংলাদেশ পুলিশ অফিসিয়াল ফেসবুক পেইজের ইনবক্সে এক নারী বার্তা পাঠান। বার্তায় তিনি উল্লেখ করেন, তার স্বামী বাংলাদেশে অবস্থিত ইউরোপিয়ান দেশসমূহের একটি দেশের দূতাবাসে চাকরি করেন। বিয়ের পর থেকে তাকে নানাভাবে নির্যাতন ও হয়রানি করছিলেন ওই ব্যক্তি। একাধিক নারীর সঙ্গে তার সম্পর্কও রয়েছে। এমনকি স্ত্রীকে সামনে রেখেই তিনি অন্য মেয়েদের সঙ্গে অনলাইনে সম্পর্ক স্থাপন করেন। ২৬ এপ্রিল তালাক দেওয়ার কথা বলে ওই নারীকে বেরিয়ে যেতে বলে তার স্বামী ঘরের দরজা বন্ধ করে দেন।

সোহেল রানা বলেন, তাৎক্ষণিক ওই নারী সহযোগিতা চেয়ে পুলিশের অফিসিয়াল ফেসবুক পেইজের ইনবক্সে বার্তা পাঠান। সেখানে তিনি বিশেষ করে অনুরোধ করেন যেনো তার সংসারটি না ভাঙে এবং তিনি যেনো তার স্বামীর সঙ্গে স্বাভাবিকভাবে সংসার করতে পারেন।

বার্তা পেয়ে মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেশন্স উইং বাড্ডা থানার ওসি মো. পারভেজ ইসলামকে প্র‌য়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেয়। ওসির উদ্যোগে এসআই মো. শহিদুল ইসলামের নেতৃ‌ত্বে থানার একটি টিম ওই নারীর দেওয়া ঠিকানায় পৌঁছে তাকে বা‌ড়ি‌তে তু‌লে দেয়।

পু‌লি‌শ ও এলাকার গণ্যমান্য ব্য‌ক্তি‌দের উপস্থিতিতে সেই ব্যক্তি নিজের ভুল স্বীকার ক‌রে স্ত্রী‌কে ঘ‌রে তু‌লে নেন এবং ভবিষ্যতে এ ধরনের ভুল করবেন না বলে অঙ্গীকার করেন। এ‌ বিষ‌য়ে থানায় অভিযোগ কর‌তে অনিচ্ছা প্রকাশ করেন ওই নারী। ঘটনার ক‌য়েক‌দিন পর মি‌ডিয়া অ্যান্ড পাব‌লিক রি‌লেশন্স উইং ওই নারীর সঙ্গে যোগা‌যোগ ক‌রে নিশ্চিত হ‌য়ে‌ছে তারা এখন ভালো আছেন। স্বামীর উপস্থিতিতে ওই নারীকে বলা হ‌য়ে‌ছে যেকো‌নো নিপীড়ন ও অন্যায় রোধে পুলিশ তার পাশে র‌য়ে‌ছে।

 

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত