প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

শওগাত আলী সাগর: ‘আমি আমার ৯৩ বছর বয়সী দাদীমাকে আবার বুকে জড়িয়ে ধরতে চাই

শওগাত আলী সাগর: আমি আমার ৯৩ বছর বয়সী দাদীমাকে আবার বুকে জড়িয়ে ধরতে চাই, বাড়ীতে সবাই মিলে একসাথে গান গাইতে চাই, সে জন্যে আমি করোনার টিকা নিচ্ছি’- এই কথাগুলো লিখে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোষ্ট দিয়েছেন কানাডার খ্যাতনামা কণ্ঠশিল্পী সারা ম্যাকল্যাশলান।

দুনিয়াজোড়া ৫০ মিলিয়নের বেশি এলবাম বিক্রির রেকর্ডসৃষ্টিকারী শিল্পী সারা নিজের একটি ছবি যুক্ত করেছেন সেই পোষ্টে। কালো রঙের টি শার্টের বুকে লিখা ‘দিস ইজ আওয়ার শট’।

সারার এই পোষ্টটি তাঁর ভক্ত শুভানুধ্যায়ীরা সমানে শেয়ার করছেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। কেবল ভক্তরাই নয়, কানাডীয়ান হাইপ্রোফাইল পলিটিশিয়ান, সেলিব্রেটি তারকা সবাই শেয়ার করছেন সেই পোষ্টটি। কানাডার প্রধান জনস্বাস্থ্য কর্মকর্তা থেরেসা ট্যামও বাদ যাননি।

শুধু যে সারার পোষ্টটি তারা শেয়ার করছেন তাই নয়। নিজেরাও ‘দিস ইজ আওয়ার শট’ শ্লোগান সম্বলিত টি শার্ট গায়ে দিয়ে ছবি পোষ্ট করছেন। ফেসবুকে নানা চ্যালেঞ্জের খেলা যেমন হয়, এটিও আসলে তেমন একটি চ্যালেঞ্জের খেলা। সেলিব্রেটি তারকারা ‘দিস ইজ আওয়ার শট’ চ্যালেঞ্জাটা নিলাম বলেই নিজের পোষ্ট দিচ্ছেন সামাজিক মাধ্যমে, আহ্বান জানাচ্ছেন অন্যদেরও এই চ্যালেঞ্জ নেয়ার।

অলিম্পিকে চার চারবার স্বর্নজয়ী কানাডার তারকা হকি খেলোয়াড় হেইলি উইকেনশিয়ার এই চ্যালেঞ্জে যোগ দিয়ে লিখেছেন, এটাই হচ্ছে একমাত্র ‘শট’ যার জন্য দিনের পর দিন প্র্যাকটিস করতে হয় না। ‘দিস ইজ আওয়ার শট’ চ্যালেঞ্জে যোগ দিযেছেন হলিউডের তারকা রায়ান রেনল্ডস, কেবল ইন্সট্রাগ্রামেই যার ৫০ মিলিয়নের বেশি ফলোয়ার। এরা সাবই মিলে আসলে কানাডীয়ানদের করোনার টিকা নিতে উৎসাহী করতে এক ধরনের ক্যাম্পেইনে নেমেছেন।

এই ধরনের প্রচারনায় রায়ানের ব্যাপারটা আলাদা। করোনার প্রথম দিকে প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো রায়ানের শ্মরণাপন্ন হয়েছিলেন- মানুষকে ঘরে থাকার বার্তাটা নাগরিকদের কাছে পৌঁছে দেয়ার। তারপর থেকে তিনি এই ক্যাম্পেইনে আছেন।

ভ্যাকসিনে কানাডা পিছিয়ে আছে, এটা যেমন সত্য, শেষ পর্যন্ত কানাডা পিছিয়ে থাকবে না,সেটাও বাস্তবতা। কিন্তু পর্যাপ্ত ভ্যাকসিন এলে নাগরিকরা যাতে পিছিয়ে না পরে সে জন্যে অভিনব এই প্রচারণা শুরু হয়েছে কানাডায়। রাজনীতিক, বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক, সেলিব্রেটি সবাই যোগ দিচ্ছেন এই ক্যাম্পেইনে। কালো টি-শার্টের বুকে ‘দিস ইজ আওয়ার শট’ শ্লোগানটি ২৬টি ভাষায় লেখা হয়েছে।

তার মধ্যে বাংলা ভাষাও আছে। নাগরিকরা তাদের পছন্দের ভাষার টি শার্টটি মাত্র ১৮ ডলারে অনলাইনে কিনে নিতে পারেন।

কানাডীয়ান সেলিব্রেটিদের সোশ্যাল মিডিয়া একাউন্টে তাদের ‘দিস ইজ আওয়ার শট’ চ্যালেঞ্জের বক্তব্যগুলো পড়তে পড়তে মনে হচ্ছিলো- বাংলাদেশের মানুষকে ঘরের বাইরে মাস্ক পরতে উৎসাহ দেয়ার জন্যও তো এমন একটি ক্যাম্পেইন হতে পারে। কি বলেন, পারে না!

সর্বাধিক পঠিত