প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] বানেশ্বর হাট সংস্কারের অভাবে ক্রেতা-বিক্রেতাদের দুর্ভোগ

আবু হাসাদ:[২] উত্তরবঙ্গের প্রথম সারির হাট গুলোর মধ্যে রাজশাহীর পুঠিয়ায় বানেশ্বর হাট অন্যতম। এর পরের স্থানে রয়েছে পৌরসভায় অধিনে ঝলমলিয়া হাট। সরকার এই দু’টি হাট থেকে প্রতিবছর দেড় কোটি টাকার উপরে রাজস্ব আয় করছেন।

[৩] অথচ বছরের পর বছর রক্ষণা-বেক্ষণের অভাবে হাট দু’টি জরাজীর্ণ হয়ে পড়েছে। নিয়ম অনুসারে ইজারার ১৫ শতাংশ অর্থ হাট সংস্কার কাজে ব্যয় করার বিধান থাকলেও কর্তৃপক্ষ তা করছেন না বলে অভিযোগ তুলেছেন ইজারদাররা। যার ফলে প্রতিবছর বর্ষা মৌসুমে ক্রেতা-বিক্রেতাদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়।

[৪] উপজেলা প্রশাসন ও পৌরসভা অফিস সূত্রে জানা গেছে, চলতি বছর বাংলা সনের এক বছরের জন্য বানেশ্বর হাট-বাজার প্রায় এক কোটি ২৫ লাখ টাকায় স্থানীয় ব্যবসায়ি ওসমান আলীর নিকট ইজারা দেওয়া হয়েছে। অপরদিকে পৌরসভা এলাকায় অবস্থিত ঝলমলিয়ার হাট ৩১ লাখ এক হাজার ২শ’টাকায় স্থানীয় ক্ষমতাসিন একজন রাজনৈতিক নেতার নামে বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। বানেশ্বর হাট ইজারদার ওসমান আলী বলেন, সরকার এই হাট থেকে প্রতিবছর কোটির উপরে রাজস্ব পাচ্ছেন।

[৫] অথচ উপজেলা প্রশাসন গত কয়েক বছর থেকে হাটের উন্নয়নে তেমন কোনো অর্থ ব্যয় করছেন না। বিষয়টি আমি মাঝে মধ্যে উপজেলা প্রশাসককে অবহিত করে আসছি। কিন্তু এর কোনো সুফল হচ্ছে না।বানেশ্বর হাটের ব্যবসায়ী মাজদার আলী বলেন, গত কয়েক বছর থেকে এই হাটে কোনো প্রকার সংস্কার কাজ হচ্ছে না। এতে করে বর্ষা মৌসুম আসলে হাটে আগতদের চরম দুর্ভোগ দেখা দেয়। হাটের বেশীর ভাগ স্থানে গর্তে হয়ে যাওয়ায় সেখানে সামান্য বৃষ্টি হলেই পানি জমে থাকছে।

[৬] আর ওই কাদা-পানির মধ্যে ক্রেতা-বিক্রেতাদের বিকিকিনি করতে হচ্ছে। ঝলমলিয়া বাজারের ক্ষুদ্র ব্যবসায়ি সেলিম হোসেন বলেন, পৌরসভা বছর শেষে হাট ইজারা দিয়েই তাদের দ্বায়িত্ব শেষ করছেন। অথচ পুরো হাটজুড়ে জরাজীন্ন অবস্থায় পতিত হয়ে আছে। পৌর কর্তৃপক্ষের নজরদারীর অভাবে হাটে আগত ক্রেতা-বিক্রেতাদের চরম দূর্ভোগ পোহাতে হয়। বিষয়টি হাট ইজারদার ও পৌরসভায় একাধিকবার অবহিত করেও এর কোনো সুফল হচ্ছে না।

[৭] তবে পৌরসভার সহকারী প্রকৌশলী সাহিদুর ইসলাম বলেন, আমরা প্রতিবছর হাটের বিভিন্ন উন্নয়ন মূলক কাজ করা হচ্ছে। গত দু’বছরে হাটের কোথায় কী কাজ করা হয়েছে এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, এই মুহুর্তে আমার কাছে হাটের যে উন্নয়নমূলক কাজ হয়েছে তার সঠিক সিডিউল নেই। তবে এবারো উন্নয়ন কাজের অর্থ বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। অচিরেই কাজ শুরু করা হবে।

[৮] এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নুরুল হাই মোহাম্মদ আনাছ বলেন, বানেশ্বর হাট উন্নয়ন ও সংস্কার কাজের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। দু’চার দিনের মধ্যে কাজ শুরু করা হবে বলে তিনি জানান।সম্পাদনা:অনন্যা আফরিন

 

 

সর্বাধিক পঠিত