প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] চরমপন্থা ঠেকাতে পাকিস্তানের চেয়ে এগিয়ে বাংলাদেশ: ইএফএসএএস

আসিফুজ্জামান পৃথিল: [২] সাম্প্রতিক বছরগুলোতে বাংলাদেশের কট্টরপন্থি ইসলামি গোষ্ঠী হেফাজতে ইসলাম ও পাকিস্তানের কট্টরপন্থি তেহরিক-ই-লাব্বাইক পাকিস্তানের (টিএলপি) কার্যক্রম তুলে ধরে ইউরোপের অলাভজনক সংস্থা ইউরোপিয়ান ফাউন্ডেশন ফর সাউথ এশিয়ান স্টাডিজ বলেছে, এসব গোষ্ঠী এই দুই দেশে সরকারের উদ্বেগের কারণ সৃষ্টি করেছে। নিজ নিজ দেশের সরকারের সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করে সহিংস ও প্রাণঘাতী বিক্ষোভে জড়িয়েছে।

[৩] গত মাসে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বাংলাদেশ সফরের বিরোধিতায় পরিচালিত সহিংস বিক্ষোভের পর সরকার হেফাজতের শীর্ষ নেতাদের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তার অভিযান চালায়। এই প্রেক্ষাপটে সরকারের ক্ষোভ কমাতে হেফাজত তাদের কেন্দ্রীয় কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করে।

[৪] অথচ পাকিস্তানে টিএলপি সেদেশ থেকে ফরাসি রাষ্ট্রদূতকে বহিষ্কারের দাবিতে বিক্ষোভ দেখিয়ে পার্লামেন্টে বিতর্ক করতে তাদের সরকারকে বাধ্য করেছে। ফ্রান্সে মহানবী হযরত মুহাম্মদের ক্যারিকেচার প্রচারের পর সম্প্রতি ফরাসি রাষ্ট্রদূতকে বহিষ্কারের দাবিতে রাজপথে নামে টিএলপি।

[৫] গত বছর অক্টোবরে ফ্রান্সে বিদ্যালয়ের শ্রেণিকক্ষে মহানবীর কার্টুন প্রদর্শনের কারণে মুসলিম শিক্ষককে হত্যার পর প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁর ধর্ম বিষয়ে উদার দৃষ্টিভঙ্গীর সমর্থনে করা মন্তব্যের প্রতিবাদে বাংলাদেশ ও পাকিস্তানে হাজারো মানুষের বিক্ষোভ দেখায় হেফাজত ও টিএলপি। বিক্ষোভে ফ্রান্সের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করার এবং আনুষ্ঠানিকভাবে ফরাসি পণ্য বর্জনে মুসলিম-সংখ্যাগরিষ্ঠ দেশগুলোর সরকারের প্রতি দাবি জানানো হয়।

[৬] ‘বাংলাদেশ অ্যান্ড পাকিস্তান: অ্যাকটিং এগেইনস্ট এক্সট্রেমিজম ভারসাস মেকিং এ শো অব অ্যাকটিং এগেইনস্ট এক্সট্রেমিজম’ শিরোনামে এ প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়।

 

সর্বাধিক পঠিত