প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] করোনার ২য় ঢেউয়ে পুলিশের ভূমিকা আশার আলো দেখছে কিশোরগঞ্জবাসী

মনোয়ার হোসাইন: [২] করোনার ২য় ঢেউয়ে কিশোরগঞ্জে পুলিশের ভূমিকা মন রাখবে কিশোরগঞ্জবাসী। গত বছর থেকে যেখানে খাদ্যাভাবের কষ্ট ও অসুস্থ বিপদগ্রস্তদের মানুষের মাঝে ত্রাণ বিতরণ, সেখানেই ত্রাণ সহায়তা ও অ্যাম্বুলেন্স নিয়ে কিশোরগঞ্জ পুলিশের কুইক রেসপন্স টিম।

[৩] কিশোরগঞ্জের দায়িত্বশীল পুলিশ সুপার মাশরুকুর রহমান খালেদের (বিপিএম-বার) বিচক্ষণতা ও সাহসিকতায় মানুষকে আশার আলো দেখাচ্ছে কিশোরগঞ্জ পুলিশ।

[৪] করোনার হটস্পট হিসেবে চিহ্নিত কিশোরগঞ্জে মানবিক কর্মকাণ্ডের ফ্রন্ট লাইনার্স হিসেবে দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে ইতোমধ্যেই কিশোরগঞ্জ পুলিশের ৯০ জন সদস্য মহামারী এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন।

[৫] কিন্তু জনগণকে সেবা প্রদানের বজ্রকঠিন শপথ ও ব্রত গ্রহণের কারণে এক পাও পিছপা হয়নি কিশোরগঞ্জ পুলিশ। দিন দিন করোনা পরিস্থিতির যতই অবনতি হচ্ছে, ততই গতিশীল হচ্ছে কিশোরগঞ্জ পুলিশের মানবিক ও জনবান্ধব সব কর্মকান্ড।

[৬] জানা গেছে, ২০২০, সনে জানুয়ারি মাসের প্রথম সপ্তাহে চীনের উহানে করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাবের খবর জানার পরই কিশোরগঞ্জ জেলার সব অফিসারদের সর্বোচ্চ সতর্কতা অবলম্বন করতে বলা হয়। তখন থেকেই আইনশৃঙ্খলাসহ সব বিষয় স্বাভাবিক রাখতে ব্যবসায়ী, আলেম, সুশীল সমাজসহ সমাজের দায়িত্বশীল লোকজনকে নিয়ে আলোচনা করে সর্বাত্মক প্রস্তুতি ও সচেতন থাকার আহ্বান জানানো হয়।

[৭] গত বছর করোনাভাইরাস প্রতিরোধ কার্যক্রমের জন্য ৫ সদস্যের মেডিকেল টিম এবং ২১ সদস্যের কুইক রেসপন্স টিম গঠন করে ১টি অ্যাম্বুলেন্স ও ৩টি গাড়ি দিয়ে সার্বক্ষণিক স্ট্যান্ডবাই রাখা হয়। জেলা পুলিশের প্রতিটি ইউনিটে জীবাণুনাশক স্প্রে মেশিন, তাপমাত্রা মাপা যন্ত্র, হাত ধোয়ার জন্য বেসিন স্থাপন করা হয়েছে ।

[৮] মার্চ মাসে বাংলাদেশে করোনার প্রাদুর্ভাব শুরু হলে জেলা সদরসহ জেলার প্রতিটি হাট-বাজার, গ্রাম-গঞ্জ ও মহল্লায়-মহল্লায় পুলিশ সদস্যদের মাধ্যমে লিফলেট, পোস্টার ও ব্যানার লাগানোর পাশাপাশি নিরবচ্ছিন্ন মাইকিং প্রচারণার মাধ্যমে সাধারণ মানুষকে সচেতন করার কাজ এখন পর্যন্ত চলছে।

[৯] স্বাস্থ্য বিভাগের সূত্রমতে রোজর সময় সোশ্যাল ট্রান্সমিশনের কারণে করোনার হটস্পট হিসেবে চিহ্নিত কিশোরগঞ্জে জ্যামিতিক হারে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে করোনা সংক্রমণ।

[১০] এ পরিস্থিতিতে অফিসার ও সদস্যদের মনোবল বৃদ্ধি ও চাঙ্গা করে সর্বোচ্চ দায়িত্ববোধ জাগ্রত করতে জেলা পুলিশ লাইনসসহ সব ইউনিটে গিয়ে পুলিশ সুপারসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ নিয়মিত ঊদ্ভুদ্ধকরণ সভায় মিলিত হচ্ছেন।

[১১] পুলিশ সুপার জানান, গত বছর একই সঙ্গে কিশোরগঞ্জ পুলিশ সামর্থ্যানুযায়ী করোনা সংকটে বেকার হয়ে পড়া নিম্ন আয়ের দরিদ্র শ্রমজীবী বেঁদে স¤প্রদায়, নরসুন্দর, মুচি সম্প্রদায় এমনকি তৃতীয় লিঙ্গের অসহায় মানুষের মধ্যে নিয়মিত খাদ্য সহায়তাসহ বিভিন্ন রকম মানবিক সহায়তা কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছেন। একই সঙ্গে প্রতিটি থানার নির্ধারিত নাম্বারে রিং দিয়েও অনন্যোপায় একশ্রেণির ভদ্রলোকরাও বাড়িতে বসে ত্রাণ সহায়তা পাচ্ছেন। এ উদ্যোগ ইতিমধ্যেই সব মহলে প্রশংসা কুড়িয়েছে। এছাড়া এবার ব্যক্তিগত ভাবে নিজ উদ্যেগে ত্রাণ সহায়তা করে যাচ্ছেন।

[১২] কিশোরগঞ্জের পুলিশ সুপার মাশরুকুর রহমান খালেদ বিপিএম (বার) আমাদের নতুন সময়কে বলেন , করোনা মোকাবেলা আমাদের সকলের আমাদের টিম ওয়ার্কের ফসল। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং মহাপুলিশ পরিদর্শক বেনজির আহমেদের নির্দেশে করোনা মোকাবেলায় সম্মুখ সারির যোদ্ধা হতে পেরে আমি এবং কিশোরগঞ্জ পুলিশ গর্বিত।

[১৩] তিনি আরও বলেন, পরিস্থিতির যতই অবনতি হোক, ২য় ঢেউ মোকাবেলায় প্রতিবেশি দেশ ভারতের করোনায় যেন কিশোরগঞ্জ বাসী কে রক্ষা করা যায় সে দিকে খেয়াল কিশোরগঞ্জের পুলিশের । করোনা যুদ্ধে কিশোরগঞ্জ পুলিশ সামনের সারিতেই থাকবে ইনশাআল্লাহ।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত