প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

চট্টগ্রামে বেশি দামে এলপি গ্যাস কিনতে হচ্ছে ভোক্তাদের

ডেস্ক রিপোর্ট: চট্টগ্রামে বিইআরসি নির্ধারিত দামের চেয়ে বাড়তি দামে সরকারি ও বেসরকারি কোম্পানির এলপি গ্যাস কিনতে হচ্ছে ভোক্তাদের। এতে ক্রেতাদের মধ্যে চরম অসন্তোষ বিরাজ করছে। বিপিসির গ্যাস সিলিন্ডারগুলো বাজারে ৮০০/৯০০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। আর বেসরকারি কোম্পানির এলপি গ্যাস প্রতি সিলিন্ডার ৯৫০ থেকে ১ হাজার ১০০ টাকা পর্যন্ত বিক্রি হচ্ছে।

এদিকে, বিপিসির এলপি গ্যাস বিপণন নিয়ে জটিলতার সৃষ্টি হয়েছে। আগে যে টাকা পেত তার চেয়ে কম টাকা নির্ধারণ করে দেওয়ায় গ্যাস বিপণনে নিয়োজিত কোম্পানিগুলো তাদের অনাগ্রহের কথা বিপিসিকে জানিয়েছে।

বিপিসির নিয়ন্ত্রণাধীন দুটি এলপি প্ল্যান্টের মধ্যে সিলেটের কৈলাসটিলা এলপিজি প্ল্যান্টে গত সাত মাস ধরে উত্পাদন বন্ধ রয়েছে। বর্তমানে ইস্টার্ন রিফাইনারি প্ল্যান্টে উত্পাদিত গ্যাস সিলিন্ডারে ভরে এলপি গ্যাস লিমিটেড বাজারজাত করছে। ফলে বিপিসির এলপি গ্যাস সরবরাহ কমে গেছে। দৈনিক মাত্র ৩ হাজার সিলিন্ডার এলপি গ্যাস বাজারজাত হচ্ছে।

বিপিসির এলপি গ্যাস তেল বিপণন কোম্পানির মাধ্যমে বাজারজাত করা হয়। গত ১২ এপ্রিল বিইআরসি সরকারি ও বেসরকারি কোম্পানির এলপি গ্যাস বিক্রিতে মূল্য নির্ধারণ করে দিয়েছে। বিপিসির সাড়ে ১২ কেজি ওজনের সিলিন্ডারের দাম ৫৯১ টাকা নির্ধারণ করে দিয়েছে। এর মধ্যে এলপি গ্যাস লিমিটেড পাবে ৫১১ টাকা, বিপণন কোম্পানি পাবে ৫০ টাকা আর ডিলার পাবে ৩০ টাকা। আগে বিপণন কোম্পানি প্রতি সিলিন্ডারে ৭৫ টাকা করে পেত। এখন টাকা কমে যাওয়ায় বিপণন কোম্পানি বিপিসির সিলিন্ডার বিক্রিতে তাদের আপত্তির কথা বিপিসি কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছে। এ ব্যাপারে এলপি গ্যাস লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী ফজলুর রহমান খান বলেন, বিপণন কোম্পানিগুলো গ্যাস বিপণনে তাদের অনীহার কথা বিপিসি কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছে। তবে এখনো বিপণন বন্ধ করেনি তারা।

ওজনে বেসরকারি কোম্পানিগুলোর চেয়ে আধা কেজি বেশি গ্যাস থাকে বিপিসির এলপি গ্যাস সিলিন্ডারে। এলপি গ্যাস লিমিটেড সূত্র জানায়, তারা নতুন দুই দফায় ৫৫ হাজার সিলিন্ডার আমদানির জন্য টেন্ডার দিয়েছে।

এদিকে বেসরকারি এলপি গ্যাস বিইআরসি নির্ধারিত মূল্যের বেশি দরে বিক্রি হচ্ছে। ১২ কেজি ওজনের গ্যাস সিলিন্ডার ৯৭৫ টাকা নির্ধারণ করে দেওয়া হয়েছে। বিপিসির ডিলার সোলাইমান বলেন, টোটাল ও বেক্সিমকোর এলপি গ্যাস সামান্য বাড়তি দামে বিক্রি হচ্ছে। বেসরকারি এলপি গ্যাস প্রতি সিলিন্ডার ৯৫০ থেকে ১ হাজার ১০০ টাকা পর্যন্ত বিক্রি হচ্ছে। বিপিসির এলপি গ্যাস সিলিন্ডার দৈনিক ১০/১২টি বেশি বরাদ্দ পাওয়া যায় না। সিলিন্ডার জরাজীর্ণ হওয়ায় ক্রেতারা বিপিসির এলপি গ্যাস কিনতে চায় না।

বিপিসির ডিলার খোরশেদুর রহমান বলেন, বেসরকারি কোম্পানির সিলিন্ডার কিছুটা বাড়তি দামে বিক্রি হচ্ছে। কারণ করোনা ভাইরাসের কারণে এলপিজি আমদানি কমে গেছে। আবার লকডাউনের কারণে পরিবহন খরচও আগের চেয়ে বেড়েছে। সূত্র: ইত্তেফাক

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত