প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] টেকনাফে বিজিবির পৃথক অভিযানে ৪০হাজার ইয়াবা উদ্ধার

ফরহাদ আমিন: [২] সোমবার ও রোববার উপজেলার জীম্বংখালী ও হ্নীলা বেড়িবাঁধ এলাকা থেকে ইয়াবাগুলো উদ্ধার করা হয়।

[৩] সোমবার এসব তথ্য নিশ্চিত করেন টেকনাফ ২বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে.কর্নেল মোহাম্মদ ফয়সল হাসান খান। তিনি জানান, সোমবার ভোরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানা যায়,হ্নীলা বিওপির দায়িত্বপূর্ণ বিআরএম ১৩ হতে আনুমানিক ১ কিঃলিঃ উত্তরে ওয়াব্রাং কাস্টম গেইটের উত্তরে বেড়িবাঁধ এলাকায় দিয়ে মিয়ানমার হতে ইয়াবার একটি বড় চালান পাচার হবে।

[৪] এমন তথ্যে হ্নীলা বিওপি একটি বিশেষ টহলদল উক্ত এলাকায় অভিযানে যায়। ঔই সময় বেড়িবাঁধের পশ্চিম পাশে দুইজন সন্দেহভাজন ব্যক্তিকে হাতে ব্যাগসহ দেখতে পেয়ে বিজিবি জওয়ানেরা তাদেরকে চ্যালেঞ্জ ও ধাওয়া করলে চোরাকারবারিরা ব্যাগ ফেলে দিয়ে অন্ধকারে সুযোগ নিয়ে পাশ্ববর্তী গ্রামে পালিয়ে যায়। পরে টহলদল উল্লেখিত স্থানে তল্লাশী অভিযান পরিচালনা করে ফেলে যাওয়া ব্যাগটি উদ্ধার করে। উদ্ধারকৃত ব্যাগের ভিতর থেকে ৯০ লাখ টাকার মূল্যের ৩০ হাজার পিস ইয়াবা ট্যাবলেট পাওয়া যায়। ঔই সময় কাউকে আটক করা সম্ভব হয়নি।

[৫] অপর দিকে রোববার রাতে জীম্বংখালী বিওপির দায়িত্বপূর্ণ বিআরএম ১৫ ও ১৬ মাঝামাঝি ৬ নম্বর স্লুইসগেট হতে আনুমানিক ৫০০ মিটার উত্তর পূর্ব দিক দিয়ে মিয়ানমার থেকে ইয়াবার একটি বড় চালান পাচার হবে। এমন তথ্যে জীম্বংখালী বিওপি একটি বিশেষ টহলদল উক্ত এলাকায় কৌশলে অবস্থান নেয়। কিছুক্ষণ পর দুইজন দুষ্কৃতকারী ব্যক্তিকে মিয়ানমার হতে নাফনদী সাঁতরিয়ে আসতে দেখে।

[৬] টহলদল ঔই ব্যক্তিদের দেখা মাত্রই চ্যালেঞ্জ করে।দুষ্কৃতকারী ব্যক্তিরা দূর হতে বিজিবি টহলদলের উপস্থিতি অনুধাবণ করা মাত্রই বহনকৃত ব্যাগটি ফেলে দিয়ে অন্ধকারে সুযোগ নিয়ে সাঁতরিয়ে মিয়ানমারের দিকে পালিয়ে যায়। পরে টহলদল উল্লেখিত স্থানে তল্লাশী অভিযান পরিচালনা করে ফেলে যাওয়া ব্যাগটি উদ্ধার করে।উদ্ধারকৃত ব্যাগের ভিতর থেকে৩০লাখ টাকার মূল্য মানের১০হাজার পিস ইয়াবা পাওয়া যায়।

[৭] তিনি আরো জানান, উদ্ধারকৃত মালিক বিহীন ইয়াবাগুলো পরবর্তীতে উর্ধ্বতন কর্মকর্তা,মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের প্রতিনিধি, গণ্যমান্য ব্যক্তি ও মিডিয়া কর্মীদের উপস্থিতিতে ধ্বংস করার জন্য ব্যাটালিয়ন সদরে ষ্টোরে জমা রাখা হয়েছে। সম্পাদনা: সাদেক আলী

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত