প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট পরিচয়ে প্রেমের ফাঁদে ফেলে ধর্ষণ, গ্রেপ্তারেএক

রাজু চৌধুরী : [২] চট্টগ্রাম নগরীতে জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট পরিচয় দিয়ে বিয়ের ভুয়া হলফনামা তৈরী করে বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রীকে একাধিকবার ধর্ষণ করার অভিযোগে এক যুবককে গ্রেফতার করেছে কোতোয়ালী থানা পুলিশ।

[৩] শনিবার (২৪ এপ্রিল) রাতে নগরীর ফিরিঙ্গিবাজার এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃত যুবক অভিজিৎ ঘোষ বোয়ালখালী উপজেলার পূর্ব গোমদণ্ডী এলাকার আশীষ কুমার ঘোষের ছেলে। কোতোয়ালী থানায় করা মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে বন্ধুত্ব গড়ে তোলে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীর সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তুলে অভিজিৎ।

[৪] নিজেকে সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আইন বিভাগ হতে অনার্স সম্পন্ন করা শিক্ষার্থী এবং বিসিএস-এ পুলিশ ক্যাডার পাওয়া কর্মকর্তা হিসেবে। পরে বিভিন্নভাবে প্রলোভন দেখিয়ে একাধিকবার ধর্ষণ করে ঐ ছাত্রীকে। বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে ৫০ টাকা মূল্যমানের ২ টি নন-জুডিসিয়াল স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর করে ও ভুয়া বিবাহের হলফনামা তৈরি করে অভিজিৎ। এক পর্যায়ে প্রতারণার বিষয়টি ছাত্রীর পরিবার জানলে তাকে বাসায় আসতে বললে নানাভাবে প্রতারণার চেষ্টা করে সে।

[৫] বিষয়টি নিশ্চিত করে কোতোয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ নেজাম উদ্দিন বলেন, সে একজন বড় প্রতারক। নিজেকে জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট পরিচয় দিয়ে বিভিন্ন জায়গায় প্রতারণা করে আসছে। প্রেমের ফাঁদে ফেলে কয়েকমাস আগে ফিরিঙ্গিবাজারে মাসির বাসায় নিয়ে ধর্ষণ করেন অভিজিৎ। একই সাথে নিজেকে জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ও পুলিশ ক্যাডারের বিসিএস কর্মকর্তা পরিচয় দিয়ে মামলার হুমকিও দেয়।

[৬] ভিকটিম বিশ্ববিদ্যালয়ের অনার্স পড়ুয়া শিক্ষার্থী। আসামী অভিজিৎ ঘোষ (২২) এর সাথে তার ফেসবুকের মাধ্যমে পরিচয় হয়। পরিচয়ের পর থেকে ফেসবুকে মেসেঞ্জারে মেসেজ আদান প্রদানের মাধ্যমে দুজনের মধ্যে বন্ধুত্ব হয়।

[৭] ২৪ এপ্রিল শনিবার ভিকটিম কোতোয়ালী থানায় হাজির হয়ে সিএমপির কোতোয়ালী জোনের সহকারী কমিশনার নোবেল চাকমা, ওসি নেজাম উদ্দিনের উপস্থিতিতে জবানবন্দি দেন এবং আসামীর বিরুদ্ধে নারী শিশু আইনের ৯(১) ধারায় একটি মামলা দায়ের করেন। কোতোয়ালী জোনের সহকারী কমিশনার নোবেল চাকমার নির্দেশে এবং ওসি নেজাম উদ্দিনের তত্ত্বাবধানে এ মামলার তদন্তকারী অফিসার এসআই মোমিনুল হাসান শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় কোতোয়ালী থানাধীন ফিরিঙ্গীবাজার থেকে আসামী অভিজিৎ ঘোষকে গ্রেপ্তার করে।

[৮] আটকের পর আসামী অভিজিতকে জিজ্ঞাসাবাদে সে বিবাহের প্রলোভন দেখিয়ে জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট পরিচয়ে প্রতারণাপূর্বক ধর্ষণ করার কথা স্বীকার করে। অপরদিকে তার বন্ধু অপর আসামীকে গ্রেফতারের অভিযান অব্যাহত আছে বলে জানান তদন্তকারী কর্মকর্তা মোমিনুল হাসান। সম্পাদনা: সাদেক আলী

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত