প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

জাহিদুর রহমান: প্রেগন্যান্ট ও ল্যাকটেটিং মাদারদের জন্য করোনা ভ্যাকসিন নিরাপদ

জাহিদুর রহমান: কয়েক মাস আগেও বিশেষজ্ঞরা প্রেগন্যান্ট এবং ল্যাকটেটিং মাদারদের করোনা ভ্যাকসিনের আওতার বাইরে রেখেছিলেন। কারণ এই দুই শ্রেণির ওপর ভ্যাকসিন ট্রায়াল হয়নি। বর্তমানে বলা হচ্ছে, এই দুই শ্রেণির মানুষের জন্যই করোনা ভ্যাকসিন নিরাপদ। পৃথিবীতে কোটি কোটি মানুষের শরীরে করোনা ভ্যাকসিন প্রবেশ করেছে। এ

খন পর্যন্ত উল্লেখ করার মতো কোনো পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি। অন্য দিকে প্রেগন্যান্ট অবস্থায় করোনা ভাইরাস সংক্রমণ হলে মা এবং বাচ্চা উভয়ের মৃত্যু ঝুঁকি বেড়ে যায়। এসব বিষয় মাথায় রেখেই WHO, CDC, NIH, ইত্যাদি প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে এখন তাদের করোনা ভ্যাকসিন নেয়ার পরামর্শ দেয়া হচ্ছে। সাম্প্রতিক গবেষণায় দেখা গিয়েছে গর্ভাবস্থা বা বুকের দুধ খাওয়ানো অবস্থায় ভ্যাকসিন নিলে মায়ের শরীরে করোনা ভাইরাসের বিরুদ্ধে যে এন্টিবডি তৈরি হয়, সেটি বুকের দুধের মাধ্যমে বাচ্চার শরীরে প্রবেশ করে এবং এই এন্টিবডি বাচ্চাকেও ভবিষ্যতে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ থেকে সুরক্ষা দিতে পারে।

বিশ্বব্যাপী সব ধরনের করোনা ভ্যাকসিনের তীব্র সংকট। প্রযুক্তি, অর্থনীতি, রাজনীতি, কূটনীতি, সব মিলিয়ে বর্তমানে পুরো পৃথিবীতে করোনা ভ্যাকসিন নিয়ে যে কতো ধরনের ঘটনা ঘটে যাচ্ছে, সেটি আপনার ধারণার বাইরে। বাংলাদেশেও যে কোনো মুহূর্তে প্রথম ডোজ দেয়া বন্ধ হয়ে যেতে পারে। তাই প্রেগন্যান্ট এবং ল্যাকটেটিং মাদারদের প্রতি অনুরোধ, আপনারা নিজের এবং বাচ্চার সুরক্ষার জন্য করোনা ভ্যাকসিন নিয়ে নিন। আমরা যারা দুই ডোজ টিকা নিতে পেরেছি, তারা আসলেই সৌভাগ্যবান। ফেসবুক থেকে আমিরুল

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত