প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] হাতীবান্ধায় বীর মুক্তিযোদ্ধাকে নির্যাতনের সত্যতা পায়নি তদন্ত কমিটি

লালমনিরহাট প্রতিনিধি: [২] জেলার হাতীবান্ধা উপজেলার ভেলাগুড়ি ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মহির উদিনের বিরুদ্ধে বীর মুক্তিযোদ্ধাকে চেয়ারের সাথে বেঁধে নির্যাতনের ঘটনায় তদন্তে সত্যতা পায়নি তদন্ত কমিটি।

[৩] এ সংক্রান্ত একটি তদন্ত প্রতিবেদন জেলা প্রশাসক আবু জাফরের কাছে প্রেরণ করেন তদন্তকারী কর্মকর্তা ও অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট টি.এম.এ মমিন। এর আগে গত ১০ ফেব্রুয়ারী ভেলাগুড়ি ইউনিয়ন চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ওই এলাকার বীর মুক্তিযোদ্ধা আকবর আলী ধনীকে গরু চুরির অপরাধে চেয়াররের সাথে দড়ি দিয়ে বেঁধে নির্যাতনের অভিযোগ তুলে জেলা প্রশাসক বরাবর একটি অভিযোগ করেন মোহর উদ্দিন নামে এক মুক্তিযোদ্ধার সন্তান।

[৪] প্রাপ্ত প্রাথমিক তদন্ত প্রতিবেদন সুত্রে জানা গেছে, গত ৬ ফেব্রয়ারী ভেলাগুড়ি ইউনিয়নের বীর মুক্তিযোদ্ধা আকবর আলী ধনীকে গরু চুরির অপরাধে চেয়াররের সাথে দড়ি দিয়ে বেঁধে নির্যাতনের যে অভিযোগ ওই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মহির উদ্দিনের বিরুদ্ধে করা হয়েছে তা তদন্তে সত্যতা মিলেনি।

[৫] তদন্ত প্রতিবেদনে আরো উল্লেখ করা হয়েছে, বীর মুক্তিযোদ্ধা আকবর আলী ধনীর পুত্র হারুনুর রশীদ ওরফে আবু গরু চুরির সাথে জড়িত। বীর মুক্তিযোদ্ধা আকবর আলী ধনী তার পুত্রের চুরিকৃত গরু বিক্রয়ের ১০ হাজার টাকা নিজ হাতে গ্রহন করেছেন।

[৬] তবে ওই তদন্ত প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে, চেয়ারম্যান তার নিজ বাড়িতে ওই বীর মুক্তিযোদ্ধাকে ডেকে নিয়ে গিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করেছেন।

[৭] এ বিষয়ে তদন্তকারী কর্মকর্তা ও অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট টি.এম.এ মমিন বলেন, গত ২২ ফেব্রুয়ারি অভিযোগের ভিত্তিতে সড়ে জমিন তদন্ত করি। এ সময় গোপনে ও প্রকাশ্যে বিভিন্ন জনের সাক্ষ্য গ্রহন করে গত ৩ মার্চ তদন্ত প্রতিবেদন জেলা প্রশাসক বরাবর জমা দিয়েছি।

[৮] জেলা প্রশাসক আবু জাফর বলেন, তদন্ত প্রতিবেদন পেয়েছি। যেহেতু এ ঘটনায় ফৌজদারী মামলা রয়েছে, সেহেতু আদালতের রায়ের পর যদি প্রয়োজনে মনে হয় তাহলে আইন মোতাবেক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।সম্পাদনা: জেরিন আহমেদ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত