প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানাতে প্রেসক্লাবে অন্ধ হাবিব

ডেস্ক রিপোর্ট: করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে বছরব্যাপী কর্মহীন হয়ে পড়া শিল্পী, কলা-কুশলী ও কবি-সাহিত্যিকদের প্রতি সদয় হয়ে প্রধানমন্ত্রী দেশের প্রতিটি জেলায় প্রত্যেককে ১০ হাজার টাকার চেক উপহার দিয়েছেন।

তারই ধারাবাহিকতায় রাজবাড়ী জেলার পাঁচটি উপজেলাতেও ২৩৪ জন সাংস্কৃতিককর্মীর মাঝে ২৩ লাখ ৪০ হাজার টাকার চেক বিতরণ করেছে জেলা শিল্পকলা একাডেমি।

প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া এই ১০ হাজার টাকার চেক পেয়ে মহাখুশি রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দির জন্মান্ধ বাউল শিল্পী হাবিব মল্লিক (২৫)। হাবিব জামালপুর ইউনিয়নের বেতেঙ্গা গ্রামের বিল্লাল মল্লিকের ছেলে।

প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া এই ১০ হাজার টাকার চেক হাতে পেয়ে প্রধানমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাতে উপহার পাওয়া চেকটি সাথে নিয়েই বুধবার (২১ এপ্রিল) দুপুরে বালিয়াকান্দি উপজেলা প্রেসক্লাবে চলে আসে অন্ধ হাবিব। এ সময় তার সাথে ছিলেন নির্মল সাংস্কৃতিক একাডেমির পরিচালক উত্তম কুমার গোস্বামী ও রিশা শিল্পী গোষ্ঠীর পরিচালক গোলাম মোর্তবা রিজু।

হাবিব তার অভিব্যক্তি প্রকাশ করতে গিয়ে বলেন, আমি জন্মের পর থেকেই চোখে দেখিনা। আমার জন্মও অত্যন্ত দরিদ্র পরিবারে। নুন আনতে পানতা ফুরানো সংসারে অনেক কষ্ট করে বেড়ে উঠেছি আমি। বিভিন্ন অনুষ্ঠানে গান গেয়ে যে অর্থ পাই তা সব বাবার হাতে তুলে দেই।

এ সময় সে আরো বলেন, এক সাথে এতো টাকা মানে ১০ হাজার টাকা আমি কখনো দেখিনি। বাবাকে বলেছি এই টাকা তুলে আমি দুটি ছাগল কিনব। বাবাও রাজি হয়েছে।

আমার মতো এতো হতভাগ্য দরিদ্র মানুষের হাতে প্রধানমন্ত্রী টাকা তুলে দেবেন তা ভাবতেও অবাক লাগছে। আমি জননেত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি। আল্লাহ্ যেন তাকে সুস্থ রাখেন এবং দীর্ঘ দিন বাঁচিয়ে রাখেন।

হাবিবের সাথে আসা উত্তম কুমার গোস্বামী ও গোলাম মোর্তবা রিজু বার্তা২৪.কমকে বলেন, হাবিব আমাদের সাথেই বিভিন্ন অনুষ্ঠানে গান করে থাকেন। প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া ১০ হাজার টাকার চেক হাতে পাওয়ার পর বেশ কয়েকদিন ধরেই আমাদেরকে সে বলছে – আমি সাংবাদিকদের সাথে দেখা করবো। সাংবাদিকদের সাথে দেখা করে তাদের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানাব। আমাকে আপনারা একটু নিয়ে যান। ওর এতো আগ্রহ দেখে আজ আমরা হাবিবকে তাই প্রেসক্লাবে নিয়ে এসেছি। হাবিব তার মনের কথাগুলো সাংবাদিকদের কাছে প্রকাশ করেছে।

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত