প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] ফোর্বস ম্যাগাজিনের এশিয়ার থার্টি আন্ডার থার্টির তালিকায় ৯ বাংলাদেশি তরুণ

আসিফুজ্জামান পৃথিল: [২] প্রযুক্তি উদ্যোগ, সামাজিক প্রভাব ও ই-কমার্স সেক্টরে অবদান রাখায় মিলেছে এই স্বীকৃতি।

[৩] এশিযার ৩০ বছরের নিচে থাকা তরুণদের জন্য এটিকে সবচেয়ে বড় স্বীকৃতি বিবেচনা করা হয়। সোমবার ৬ষ্ঠ বারের মতো ফোর্বস এই সম্মানজনক বার্ষিক তালিকা প্রকাশ করে। এর আগের ৫ বছরে সব মিলিয়ে ৯ জন বাংলাদেশি এই তালিকায় স্থান পেয়েছিলেন।

[৪] প্রযুক্তি উদ্যোগ খাত থেকে ৩ বাংলাদেশি এই তালিকায় স্থান পেয়েছেন। তারা হলেন;আর্টিফিশিয়াল ইনটেলিজেন্স বা এআই-ভিত্তিক উদ্যোগ ‘গেজ টেকনোলজিসের প্রতিষ্ঠাতা শেহজাদ নূর তাওস (২৪) ও মোতাসিম বীর রহমান (২৬) ও স্টার্টআপ ক্র্যামস্ট্যাকের প্রতিষ্ঠাতা মীর সাকিব (২৮)।

[৫] সামাজিক প্রভাব খাতে আছেন দুজন। কুয়ালালামপুর-ভিত্তিক এনজিও অ্যাওয়ারনেস ৩৬০-এর প্রতিষ্ঠাতা শোমী হাসান চৌধুরী (২৬) এবং রিজভি আরেফিন (২৬)। বর্তমানে ২৩ দেশে এই এনজিওর দেড় হাজার স্বেচ্ছাসেবক রয়েছেন। হাত ধোয়া, পানি-পরিস্রাবণ, স্যানিটেশনসহ ব্যক্তিগত স্বাস্থ্যবিষয়ক প্রচার চালাচ্ছেন তারা।

[৭] আর ই-কমার্সে অবদান রাখায় তালিকায় আছেন ৪ জন। তারা হলেন; অভিযাত্রিক ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা আহমেদ ইমতিয়াজ জামি (২৭), হাইড্রোকো প্লাসের প্রতিষ্ঠাতা রিজভানা হৃদিতা (২৮) ও মো. জাহিন রোহান রাজীন (২২) ও পিকাবোর সহপ্রতিষ্ঠাতা মোরিন তালুকদার (২৭)।

[৮] গত বছর ফোর্বসের এশিয়ার ৩০ বছরের কম বয়সী উদ্যোক্তা ও সমাজ পরিবর্তনকারী তালিকায় ছিলেন বাংলাদেশের রাবা খান ও ইশরাত করিম। ফোবর্সের প্রতিবেদনে বলা হয়, রাবা খান সমাজের নানা বিষয়ে ব্যঙ্গাত্মক ভিডিও অনলাইনে প্রকাশ করে সুপরিচিত হয়েছেন। আর ইশরাত করিম আমাল ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে দরিদ্র মানুষের সহায়তায় নানা কাজ করেন।

 

সর্বাধিক পঠিত