প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আমিরুল ইসলাম: আঞ্চলিক গানের কালজয়ী শিল্পী এম এন আখতারের প্রয়াণ দিবস আজ, পাঁচ হাজারের বেশি গানের স্রষ্টা তিনি

আমিরুল ইসলাম: ‘কইলজার ভিতর গাঁথি রাইখ্যম তোয়ারে’- বিভিন্ন সময়ে অনেক শিল্পীর কণ্ঠে এই গান জনপ্রিয় হয়েছে। কিন্তু এই গানের যিনি আসল স্রষ্টা, তিনি এম এন আখতার। চট্টগ্রামের আঞ্চলিক গানের কালজয়ী শিল্পী তিনি। ১৯৩১ সালের ১ জুলাই চট্টগ্রামের রাউজানের মোহাম্মদপুর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন তিনি। এম এন আখতার কেবল একজন শিল্পীই ছিলেন না, তিনি গান লিখতেন এবং সুরও করতেন।

এম এন আখতার ১৯৬২ সালে বেতার শিল্পী হিসেবে যোগ দেন। এরপর তিনি আধুনিক, পল্লীগীতি, মুর্শীদি, মারফতি, চট্টগ্রামের আঞ্চলিক গান রচনা ও কণ্ঠ দিয়ে খ্যাতি লাভ করেন। ১৯৮৭ সালে তিনি অবসর নেন। তিনি সংগীত বিষয়ক কয়েকটি গ্রন্থ লিখেছেন। এর মধ্যে মনুআ-১, মনুআ-২ এবং ৩০ দিনে অভিনব সঙ্গীত শিক্ষা উল্লেখযোগ্য। আঞ্চলিক গানের সম্রাজ্ঞী হিসেবে খ্যাত শেফালী ঘোষের ওস্তাদ ছিলেন এম এন আখতার। তার লেখা-সুরে গান গেয়ে শ্যামসুন্দর বৈষ্ণবও খ্যাতি পেয়েছেন।

এম এন আখতারের সৃষ্ট অনেক গান ব্যবহৃত হয়েছে বিভিন্ন সিনেমায়। ‘কইলজার ভিতর গাঁথি রাইখ্যম তোয়ারে’ ছাড়াও ‘যদি সুন্দর একখান মুখ পাইতাম’ ‘তুমি যে আমার জীবনের উপহার’, ‘ও পড়ানোর তালতো ভাই’, ‘বাচু রে- জী জী জী’ ও ‘বর্গী এলো দেশে’ গানগুলো তারই সৃষ্টি। এম এন আখতার কেবল চট্টগ্রামের আঞ্চলিক গানই নয়, তিনি লিখেছেন দেশাত্মবোধক, পল্লিগীতি, ভাব-বিচ্ছেদ ও পির-আউলিয়ার গানও। এছাড়া তিনি চট্টগ্রামের আঞ্চলিক ভাষায় ‘চুড়িওয়ালা’, ‘সোনার কলসী’, ‘নাতিন জামাই’, ‘কানের ফুল’, ‘লট্টন কইতর’, ‘রাঙ্গাবালির চরে’, ‘বৈশাখী মেলা’সহ অনেক নাটক লিখেছেন। ২০১২ সালের ১৮ই এপ্রিল মৃত্যুবরণ করেন তিনি।

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত