প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন কর্তৃক এক হাজার হতদরিদ্র মানুষের মাঝে উপহার সামগ্রী প্রদান

রিয়াজুর রহমান : [২] কোভিড-১৯ জনিত উদ্ভূত পরিস্থিতিতে লকডাউন চলাকালীন সময়ে কর্মহীন হয়ে পড়া চট্টগ্রাম নগরীর হতদরিদ্র ও অস্বচ্ছল পরিবারের মাঝে প্রধানমন্ত্রী প্রদত্ত ১ হাজার প্যাকেট উপহার সামগ্রী (ত্রাণ) প্রদান করা হয়েছে।

[৩] শুক্রবার (১৬ এপ্রিল) সকাল ১১টায় জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে চট্টগ্রাম নগরীর এম এ আজিজ স্টেডিয়াম ও জিমনেশিয়াম হলে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে ১ হাজার পরিবারের মাঝে এসব উপহার সামগ্রী বিতরণ করেন বিভাগীয় কমিশনার এ বি এম আজাদ এনডিসি।

[৪] প্রতি প্যাকেট উপহার সামগ্রীর মধ্যে ছিল-৭ কেজি চাল, ১ কেজি ডাল, ১ লিটার সয়াবিন তেল, ২ কেজি আলু, ১ কেজি চিনি ও ১টি সাবান।

[৫] এসময় চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার এ বি এম আজাদ এনডিসি বলেন, করোনাকালীন সময়ে জাতির পিতার সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনায় জেলা প্রশাসন কর্তৃক নগরী ও জেলার অস্বচ্ছল মানুষের মাঝে ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে। হতদরিদ্র কোন পরিবার যাতে সরকারী ত্রাণ সহায়তার বাইরে না থাকে সে ব্যাপারে কঠোরভাবে তদারকি করা হবে। এ পরিস্থিতিতে কেউ যাতে অভূক্ত না থাকে সে বিষয়টি প্রাধান্য দেয়া হচ্ছে।

[৬] সভাপতির বক্তব্যে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মমিনুর রহমান বলেন, আমাদের সকলের প্রিয় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশের গরীব-দু:খী মানুষের সার্বক্ষণিক খোঁজ খবর রাখেন। করোনাকালে কেউ যাতে অনাহারে ও কষ্টে না থাকে তা দেখার জন্য তিনি আমাদেরকে নির্দেশ দিয়েছেন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় গত বুধবার (১৪ এপ্রিল) থেকেই সমাজের অসহায় ও অস্বচ্ছল মানুষের মাঝে ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রম শুরু করা হয়।

[৭] জেলা প্রশাসক বলেন, কিছু দুঃস্থ মানুষের ঘরে ঘরে গিয়েও ত্রাণ পৌঁছে দেয়া হচ্ছে। আজ শুক্রবার (১৬ এপ্রিল) এম এ আজিজ স্টেডিয়াম ও জিমনেশিয়াম হলে প্রায় ১ হাজার অস্বচ্ছল পরিবারের সদস্যদের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে। আমাদের কাছে ২০ হাজার প্যাকেট ত্রাণ সামগ্রী মজুদ আছে। প্রতিদিনই আমরা গরীব-অসহায় মানুষের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করে যাবো। শুধু মহানগরী এলাকা নয়, উপজেলা পর্যায়েও এ কার্যক্রম চলমান রয়েছে।

[৮] উপহার সামগ্রী বিতরণ অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) এস.এম জাকারিয়া, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মাসুদ কামাল, স্টাফ অফিসার টু ডি সি ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট উমর ফারুক, এনডিসি ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাসুদ রানা, জেলা ত্রাণ কর্মকর্তা সজীব চক্রবর্তী প্রমূখ।

[৯] এছাড়া স্বেচ্ছাসেবক টিম বেটার ফিউচার বাংলাদেশ, পুর্বাশার আলো, রেড ক্রিসেন্ট, তৃণমুল নাট্যদল, সার্চ, নির্বাণ ক্লাব ও সিপিপি ত্রাণ বিতরণ কাজে সহযোগিতা করেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত